উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর

  • রায়গঞ্জ শহরে প্রকাশ্য দিবালোকে এক পুলিশকর্মীর বাড়ীতে ডাকাতি।

    ডেস্ক ১ এপ্রিল :  রায়গঞ্জ শহর লাগোয়া  সোহারই এলাকায় এক পুলিশকর্মীর বাড়ীতে প্রকাশ্য দিবালোকে  ডাকাতির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল  রায়গঞ্জে।  জানা যায় আজ বিকেল চারটে নাগাদ ওই পুলিশকর্মীর স্ত্রীর হাত-পা বেঁধে সর্বস্ব লুট করে নিয়ে গেল দুই দুষ্কৃতী। খবর পেয়ে আইসি  সুমন্ত বিশ্বাসের নেতৃত্বে দ্রুত ঘটনাস্থানে আসে রায়গঞ্জ থানার পুলিশকর্মীরা। বর্তমানে ওই এলাকার একটি হোটেলের CCTV ফুটেজ খতিয়ে দেখে দুষ্কৃতীদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে তারা।  স্থানীয় সূত্রে জানা যায় রায়গঞ্জের সোহারই গ্রামের বাসিন্দা কসবা  ৪ নম্বর ব্যাটেলিয়ন আর্মড পুলিশের  এএসআই  অনিলচন্দ্র দাস  বর্তমানে দার্জিলিঙে কর্মরত ।  সোহারইয়ের বাড়িতে স্ত্রী ও ছেলে থাকেন। আজ বিকেল চারটে নাগাদ বাড়ি ফাঁকা ভেবে দুই দুষ্কৃতী ঘরে ঢোকে। অনিলবাবুর স্ত্রী মায়া দাস তখন বাথরুমে ছিলেন। সেখান থেকে বের হতেই দুই দুষ্কৃতী তাঁর হাত ও মুখ বেঁধে বেধড়ক মারধরের পাশাপাশি আলমারি ভেঙে সর্বস্ব লুট করে।  আক্রান্ত মায়া দেবী জানান যে তার  ছেলে রায়গঞ্জে কাজে গেছিল এবং তিনি  বাথরুমে ছিলেন । দরজা জানালা বন্ধ থাকায় দুষ্কৃতীরা বাড়িতে কেউ নেই মনে করে ঢুকেছিল। কিন্তু, তাকে দেখতে পেয়ে হাত-পা বেঁধে প্রচণ্ড মারধর করে  ঘরের সবকিছু লুট করে পালিয়ে যায়।  তারা  একটি নীল রঙের বাইক নিয়ে এসেছিল।”

  • মনোনয়নপ্ত্র তুলতে না পেরে পথ অবরোধ।

    ৩১ শে মার্চ : দক্ষিণ দিনাজপুরের তপনের ভিকাহার এলাকার মাদ্রাসার পরিচালন সমিতির নির্বাচনে মনোনয়নপত্র তুলতে বিরোধীদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে।  প্রতিবাদে গতকাল বিকালে  ভিকাহার-মালদা রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ  দেখায় বিরোধীরা। বিকাল সাড়ে তিনটে থেকে শুরু হয় পথ অবরোধ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থানে যায় তপন থানার পুলিশ। সন্ধে সাতটা নাগাদ অবরোধ উঠে যায়। তপন থানার ভাদ্রাইল মাদ্রাসা স্কুলের পরিচালন সমিতির ৬টি আসনে আগামী ১৫ এপ্রিল নির্বাচন। আজ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। মঙ্গলবার থেকে মনোনয়নপত্র তোলা ও জমা দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। শাসকদল তৃণমূলের পাশাপাশি কংগ্রেস, আর এস পি ও সিপিএম মনোনয়নপত্র তুলতে যায়। অভিযোগ, শাসকদলের তরফে বিরোধীদের মনোনয়নপত্র তুলতে বারবার বাধা দেওয়া হচ্ছে। দেওয়া হচ্ছে হুমকিও। পুলিশ-প্রশাসনকে এবিষয়ে লিখিতভাবে জানায় বিরোধী দলগুলি। এতে কাজ না হওয়ায় গতকাল বিকাল সাড়ে তিনটে থেকে ভিকাহার-মালদা রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় কংগ্রেস, আর এস পি ও সিপিএম পুলিশ গিয়ে বুঝিয়ে পথ অবরোধ তুলে দেয়। আজও মনোনয়নপত্র তুলতে না দেওয়া হলে ফের রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানো হবে বলে বিরোধীদের পক্ষ থেকে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।  

  • বালুরঘাট পুলিশের সাহায্যে পরীক্ষা দিতে পারলেন উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী

    নীহার বিশ্বাস, বালুরঘাট: বালুরঘাট থানার এ এস আই প্রশান্ত বর্মণ সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন এক উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে।  কার্যত প্রশান্তবাবুর জন্যই উচ্চ মাধ্যমিকের প্রথম পরীক্ষা দিতে পারলেন পরীক্ষার্থী বিশ্বরঞ্জন ওরাও। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, হিলি থানার বিনশিরা গ্রাম পঞ্চায়েতের মানিকোর গ্রামের বাসিন্দা বিশ্বরঞ্জন ওরাও। তিনি তিওড় কৃষ্ণা অষ্টমী উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র। তার পরীক্ষার সিট পরেছিলো বাদামাইল লক্ষী পোতা উচ্চ বিদ্যালয়ে। বাড়ি থেকে প্রায় আট কিমি দূরে। এদিন পরীক্ষা শুরুর আধঘন্টা আগে সকাল সাড়ে নয়টায় বিশ্বরঞ্জন বাদামাইলে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে যান। সেখানে পরীক্ষা হলে প্রবেশ করতে যেতেই তার নজরে আসে যে, সে ভুল করে পরীক্ষার আডমিট কার্ডটি বাড়িতেই ফেলে রেখে এসেছে। আডমিট না থাকায় কর্তব্যরত পুলিশকর্মীরা তাকে পরীক্ষা হলে ঢুকতে বাধা দেন। তারপরই ওই পরীক্ষার্থী পরীক্ষা না দিতে পারার আশংকায় আতংকিত হয়ে পড়েন। কারন, পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে তার বাড়ি গিয়ে মাত্র আধঘন্টার মধ্যে আডমিট আনা প্রায় অসম্ভব। কারন, সেই রাস্তায় সচরাচর যানবাহনও মেলে না। এই অবস্থায় দিশেহারা হয়ে পড়লে কর্তব্যরত এ এস আই প্রশান্ত বর্মণ ছাত্রটির কাছ থেকে ঘটনাটি জানতে পারেন। তারপরেই তিনি পরীক্ষা কেন্দ্রের সামনে থাকা এক অভিভাবকের বাইক চেয়ে নিয়ে সেই বাইকে ওই পরীক্ষার্থীকে বসিয়ে তার বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। দ্রুত বাইক চালিয়ে বাড়ি থেকে আডমিট কার্ড এনে ওই পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছে দেন। এরপরেই পরীক্ষার্থী বিশ্বরঞ্জন সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা দিতে পারেন। এদিকে, ওই পুলিশকর্মী প্রশান্তবাবুর এই দৃষ্টান্তমূলক কর্তব্য পালনের খবর ছড়িয়ে পড়তেই পুলিশ মহলে খুশির হাওয়া ছড়িয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, প্রশান্তবাবুর তৎপড়তায় ওই পরীক্ষার্থী শেষ পর্যন্ত ভালোভাবেই পরীক্ষা দিতে পেরেছে। এই ধরনের কর্তব্যপরায়ণ পুলিশ অফিসারদের জন্য আমরা গর্ব বোধ করি।

  • ছেলের অত্যাচারে বৃদ্ধ বাবা-মা রাস্তায় অভুক্ত অবস্থায়।

    ডেস্ক,১৬ মার্চঃ রায়গঞ্জ শহরের সুভাষগঞ্জ এলাকায় বৃদ্ধ বাবা-মাকে মারধর করে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তার ছোট ছেলের বিরুদ্বে।  গতরাতে বৃদ্ধ দম্পতিকে বাড়ি থেকে বের করে দেয় ছেলে। সারারাত রাস্তায় কাটান দম্পতি। এরপর আজ সকাল হতে না হতেই তাঁরা পুলিশের দ্বারস্থ হন। স্ত্রী কে নিয়ে সুভাষগঞ্জে নিজের বাড়িতে থাকতেন বৃদ্ধ নিমাই ঘোষ। তাঁর ছোটো  ছেলে মানিক ঘোষও স্ত্রীকে নিয়ে ওই বাড়িতে থাকে।  অভিযোগ, একই বাড়িতে থাকা সত্ত্বেও বৃদ্ধ বাবা-মাকে দেখে না তারা। ছেলে বউমা দু’জনে রোজগার করলেও বাবা-মাকে দেখে না। তাই এই বয়সেও নিমাইবাবুকে উপার্জন করে সংসার চালাতে হয়।    অভিযোগ, বাবার নামে থাকা বাড়িটিকে  নিজের নামে করে নেওয়ার জন্য তাঁদের উপর মারধর ও অত্যাচার চালাত মানিক।  এনিয়ে বেশ কিছুদিন আগে প্রথমে স্থানীয় পঞ্চায়েতের দ্বারস্থ হন বৃদ্ধ দম্পতি। পঞ্চায়েতের তরফে মানিককে সতর্ক করে দেওয়া সত্ত্বেও ছেলে নিজেকে শুধারায়নি। বৃদ্ধ বাব মায়ের  উপর  শারীরিক ও নির্যাতন সে আরও বাড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ।    গতকাল সেই অত্যাচারের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। অভিযোগ, অভুক্ত অবস্থায় বৃদ্ধ দম্পতিকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয় মানিক। এরপর সারা রাত রাস্তায় কাটান তাঁরা। আজ সকালে দেখতে পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁদের খাবার দিয়ে সাহায্য করেন। তারপরই রায়গঞ্জ থানায় গিয়ে অভযোগ জানান বৃদ্ধ দম্পতি।  

  • বালুরঘাট থেকে কলকাতা বিমান পরিষেবা এপ্রিল মাস থেকে চালু হচ্ছে।

    বালুরঘাট টু কলকাতা বিমান পরিষেবা নীহার বিশ্বাস, ১৫ই মার্চ: আগামী এপ্রিল মাস থেকেই বালুরঘাট টু কলকাতা বিমান পরিষেবা চালু হচ্ছে।  বৃহস্পতিবার বালুরঘাটেরবিমানবন্দরের পরিকাঠামো সরজমিনে খতিয়ে দেখে এই কথা জানিয়েছেন এয়ারপোর্ট অথরিটি অব ইন্ডিয়ার পশ্চিমবঙ্গের ট্রান্সপোর্টকমিশনার  রজত বোস। এদিন, দুপুরে রজতবাবু ছাড়াও এফটিআই-র ডিরেক্টার দীপক কুমার গুপ্তা, দক্ষিণ দিনাজপরের জেলাশাসকশরদ কুমার দ্বিবেদি ও পূর্তদপ্তরের আধিকারিকরা  বালুরঘাট বিমানবন্দর পরিদর্শনে যান। সেখানে গিয়ে আধিকারিকরা সমস্তপরিকাঠামো খতিয়ে দেখেন। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী এপ্রিল মাস থেকে একটি ২০ আসনের বিমান প্রাথমিকভাবে চালু করাহবে। এনিয়ে, জেলাশাসক শরদ কুমার দ্বিবেদি বলেন, এপ্রিল থেকে বিমান পরিষেবা চালুর উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। কিছু কাজ সামান্য বাকি রয়েছে। সেই কাজ শীঘ্রই শেষ করা হবে।কাজ শেষ হলেই বিমান পরিষেবা চালু হবে। উল্লেখ্য, বালুরঘাট বিমানবন্দর দ্রুত চালু করার জন্য রানওয়ে থেকে বিমানবন্দরে যাবার রাস্তার কাজ দ্রুত শেষ করা হয়েছে।বিমানবন্দর চালুর জন্য এখন সামান্য কিছু শেষ পর্যায়ের কাজ বাকি রয়েছে। প্রশাসনের দাবি, সেই কাজ এপ্রিলেই শেষ হয়ে যাবে। এদিকে, বিমানবন্দর চালুর খবর ছড়িয়ে পড়তেইজেলাবাসীর মধ্যে খুশির হাওয়া ছড়িয়েছে।

  • মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফ্যাসিস্ট নেত্রী, বালুরঘাটে বিজেপির কর্মশালায় মুকুল রায়

    নীহার বিশ্বাস, বালুরঘাট: বালুরঘাটে বিজেপির কর্মশালায় যোগদিতে এসে একদা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশ্বস্ত অনুগামী মুকুল রায় মমতাকে ফ্যাসিস্ট নেতাদের সঙ্গে তুলনা করলেন। মমতা সম্পর্কে মুকুলবাবু বলেন, রাজ্যে ফাসিস্ট সরকার চলছে। এখানে বিরোধী রাজনীতি করাই যায়না। বিরোধীরা কিছু বললেই তাদের বিরুদ্ধে ভুয়ো মামলা দিয়ে কন্ঠ রোধ করা হচ্ছে। তারপরেই রাজ্যের সর্বত্র বিজেপি বাড়ছে। প্রসঙ্গত, গৌড়বঙ্গের তিনজেলা মালদহ, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের বিজেপির সাংগঠনিক নেতাদের নিয়ে বালুরঘাটে একটি রাজনৈতিক কর্মশালার আয়োজন করে গেরুয়া শিবির। আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে পাখির চোখ করে গৌড়বঙ্গে পদ্মফুল ফোঁটাতে বিজেপি নেতাকর্মীদের বার্তা দিতেই মুকুলবাবু এই জেলায় এসেছিলেন। কর্মশালা শেষে আত্মবিশ্বাসী মুকুলবাবু বলেন, আমাদের সংগঠন অনেক ভালো পর্যায়ে রয়েছে। আমরা পঞ্চায়েত ও জেলা পরিষদগুলি দখল করব। অন্যদিকে, বিজেপির বিক্ষুব্ধ নেতা সুভাষ বর্মন, তথাগত রায়েদের নেতৃত্বে জেলার একাংশ বিজেপি নেতাকর্মীরা বালুরঘাটের যুবশ্রী মোড়ে আলাদাভাবে একটি মিটিংয়ের আয়োজন করে। সেখানে মুকুলবাবুর এক প্রতিনিধির সামনে এই বিক্ষুব্ধ বিজেপি নেতারা জেলা নেতাদের বিরুদ্ধে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারপর মুকুলবাবুর প্রতিনিধি বিক্ষুব্ধ নেতাদের সঙ্গে কলকাতায় দেখা করার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। যদিও মুকুলবাবু এই মিটিংয়ের কথা স্বীকার করলেও তারা যে বিক্ষুব্ধ বিজেপি নেতা তা তিনি মানতে চাননি। এনিয়ে মুকুলবাবু বলেন, ওরা বিক্ষুব্ধ বিজেপি নয়। ওরা বিক্ষুব্ধ তৃণমূল নেতা। আমি তাদের সঙ্গে সেখা করার কথা জানিয়েছি। এদিকে এই ঘটনায় রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক চর্চা শুরু হয়েছে। রাজনৈতিক মহলের দাবি, বিজেপি যে গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের মধ্যে চলছে তা না মেটালে পঞ্চায়েত নির্বাচনে শক্তিশালী তৃণমূলের সঙ্গে লড়াই করতে যথেষ্ট বেগ পেতে হবে।

  • উত্তর দিনাজপুরে পথ দুর্ঘটনায় আহত পরীক্ষার্থীরা হাসপাতালে বসে পরীক্ষা দিল।

    ডেস্ক, ১৪ মার্চ : গতকাল মাধ্যমিকের ইংরাজি পরীক্ষা দিয়ে বাড়ী  ফিরে যাওয়ার  পথে  চোপড়া থানার ঘোষপাড়া এলাকার রাজ্য সড়কে দুটি মোটর বাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন পরীক্ষার্থী সহ মোট পাঁচজন আহত হয়। প্রথমে তাদের দলুয়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়।  একজনের অবস্থার অবনতি হওয়ায় উত্তরবঙ্গ মেডিকেলে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।  আহত ছাত্রীদের নাম রিঙ্কি খাতুন ও আজেমা খাতুন ও সিজারা খাতুন। আজ আহত ঐ দুই ছাত্রী রিঙ্কি খাতুন ও আজেমা খাতুন  লেখক নিয়ে দলুয়ার স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে মাধ্যমিকের ভূগোল পরীক্ষা দিল রিঙ্কি খাতুন ও আজেমা খাতুন। অপর এক আহত ছাত্রী সিজারা খাতুন উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল  থেকে পরীক্ষা দিল।   ছাত্রীদের অভিভাবকদের তরফ থেকে বিদ্যালয়ের কাছে পরীক্ষার জন্য আবেদন করা হয়েছিল, বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে চোপড়া ব্লকের বিডিও সাহেবের কাছে আবেদনের ভিত্তিতে বিডিও , নিয়ম অনুযায়ী রাইটারের  ব্যাবস্থা করার মধ্য দিয়ে আহত তিন পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাবস্থা করে দেন।বিডিও সাহেব জানান যেহেতু আহত পরীক্ষার্থীরা  হাসপাতালে ভর্তি এবং  লেখার মতো অবস্থায় নেই। তাই রাইটারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও পরীক্ষার্থীদের সাহায্য করেছে।

  • গঙ্গারামপুরে গোষ্ঠী কোন্দলের ফলে খুন তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী।

    ডেস্ক, ১২ মার্চঃ পঞ্চায়েত ভোটের আগে ফের উত্তপ্ত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর ব্লকের নন্দনপুর। গতকাল গভীর রাতে নন্দনপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিকর এলাকায় পিকনিক চলার সময় গুলি করে খুন করা হল এক তৃণমূল কর্মীকে। মৃতের নাম দিলীপ সরকার(৫০)। বাড়ি বিকর  এলাকায়। ঘটনায় সোমবার মৃতার স্ত্রী রেখা রাণী সরকার প্রতিবেশী অসিত সরকারের নামে গঙ্গারামপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের ফলে এই খুন বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। জানা গেছে, গতকাল রাতে বিকর এলাকায় পিকনিক চলছিল। সেই পিকনিকে হাজির ছিল দিলীপ সরকার। পিকনিক চলা কালীন দিলীপকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাকে গঙ্গারামপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসলে সেখানে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। এদিকে ঘটনার পর যারা এক সঙ্গে পিকনিক করছিল তারা পালিয়ে যায়। স্থানীয় সূত্রে আরও জানা গেছে, পিকনিক চলাকালীন বচসা বাধে। সেই সময় কেউ দিলীপকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। সামনেই পঞ্চায়েত নির্বাচন তার আগে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠল গঙ্গারামপুরের নন্দনপুর। এই এলাকায় তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব বরাবরই সামনে এসেছে। গুলি থেকে বোমা সব কিছুই চলে এই এলাকায়। গতকালের খুনের ঘটনায় মৃতার স্ত্রী গঙ্গারামপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। যদিও এখন পর্যন্ত কাউকেও আটক বা গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ এদিন মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। অন্য দিকে গঙ্গারামপুর পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অভিযোগ পেয়েছেন তারা। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

  • মাটিতে পড়া ১২০টাকা তুলতে গিয়ই নিঃস্ব হলেন রেশন ডিলার

    ডেস্কঃ (I.D).০৮ মার্চ ২০১৮ঃ বালুরঘাটের  শিবতলিতে রেশন ডিলারের ম্যানেজারের কাজ করেন বিকাশ ভৌমিক। গতকাল ৩ লক্ষ টাকার চেক জমা দেন ব্যাঙ্কে। তুলে নেন ২ লক্ষ ৮৫ হাজার টাকা। পুরো টাকা ব্যাগে ভরে রাস্তায় বেরোন। টাকা ভর্তি ব্যাগ রাখেন সাইকেলের ঝুড়িতে।তখনই হাজির এক যুবক। বিকাশবাবুকে বলে তাঁর পকেট থেকে ১২০ টাকা পড়ে গেছে। বিকাশবাবু ফিরে দেখেন বেশকয়েকটি ১০-২০ টাকা নোট পড়ে আছে। নীচু হয়ে তা তুলেও নেন তিনি। কিন্তু, ততক্ষণে সাইকেলের ঝুড়ি থেকে উধাও হয়ে গেছে ২ লক্ষ ৮৫ হাজার টাকা। পগার পার ওই যুবকও।বিকাশ ভৌমিককে জেরা শুরু করেছে পুলিস। খতিয়ে দেখা হচ্ছে ব্যাঙ্ক ও তার বাইরের সিসি ক্যামেরার ফুটেজও।

  • বালুরঘাটে প্রতিবেশীর ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে ধর্ষণ করার অভিযোগ পুলিসকর্মীর বিরুদ্ধে

    ডেস্ক ,৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ঃ ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল এক পুলিসকর্মীর বিরুদ্ধে। অভিযোগ, অন্ধকার ঘরে তাঁর মায়ের সামনেই ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করা হয়। ঘটনাটি উত্তর দিনাজপুরের কর্ণজোড়ার। অভিযুক্ত পুলিসকর্মী অখিল মণ্ডল ঘটনার পর থেকে পলাতক। অভিযুক্ত অখিল মণ্ডল রায়গঞ্জ সংশোধনাগারের জেল ওয়ার্ডেন। অভিযোগ, সোমবার মাঝ রাতে ওই গৃহবধূ ঘুম থেকে উঠে শৌচালয়ে যান। সেই সময়ই বাড়ির মেইন সুইচ বন্ধ করে দেন অখিল। বাড়ি অন্ধকার হতেই সুযোগ বুঝে ঘরের মধ্যে ঢুকে এককোণে ঘাপটি মেরে বসে থাকেন তিনি। এরপরই ওই গৃহবধূ শৌচালয় থেকে ঘরে ফিরতেই তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়েন অখিল। ঘরের মধ্যে তখন ওই গৃহবধূর মা-ও ছিলেন। কিন্তু অন্ধকার ঘরে কী ঘটছে, তা প্রথমে ঠিকমতো ঠাওর করতে পারেননি নির্যাতিতার মা। এমনকী অভিযুক্ত অখিল মণ্ডলকে 'নিজের জামাই' ভেবেও ভুল করেন তিনি। পরে মেয়ের চিত্কারে সম্বিত ফিরতেই দৌড়ে বাইরে বেরিয়ে এসে ঘরের দরজা আটকে দেন। চিত্কার-চেঁচামেচি জুড়ে দেন ওই গৃহবধূর মা। এ দিকে, নির্যাতিতা গৃহবধূর মায়ের চিত্কারে ছুটে আসেন অভিযুক্ত পুলিসকর্মীর বাড়ির লোকেরা। অভিযোগ, ওই গৃহবধূর বাড়ির লোকদের উপর চড়াও হন তাঁরা। মারধর করে বাড়ির দরজা ভেঙে ছাড়িয়ে নিয়ে যান বাড়ির ছেলেকে। এরপর সোমবার রাতেই কর্ণজোড়া পুলিস ফাঁড়িতে অভিযুক্ত অখিল মণ্ডলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতা গৃহবধূর পরিবার। কিন্তু পুলিসের তদন্ত নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। অভিযোগ, ঘটনার পর দুদিন কাটতে চললেও এখন অধরা অভিযুক্ত। পাশাপাশি অভিযুক্তের পরিবার অভিযোগ তুলে নিতেও চাপ  দেওয়া হছহে ।