উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর

  • তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিজেপির প্রার্থীর স্বামীকে মারধর, অভিযোগ ঘরছাড়া প্রার্থীর

    ডেস্ক, ২২ এপ্রিল :দক্ষিন দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে পঞ্চায়েত নির্বাচনে  গ্রাম  পঞ্চায়েত থেকে প্রাথীপদ প্রত্যাহার না করায় এক বিজেপি প্রার্থীর স্বামীকে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃনমূলের বিরুদ্বে। ঘটনায় গুরুতর আহত বিজেপি প্রার্থীর স্বামীর নাম স্বপন বর্মণ(৫০)।তিনি বর্তমানে  বালুরঘাট জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।  এদিকে, আতঙ্কে ছেলেকে নিয়ে ঘর ছেড়েছেন সরস্বতী বর্মণ নামে ঐ বিজেপি  প্রার্থী। তিনি আপাতত বালুরঘাট জেলা বিজেপি কার্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। তৃনমূল  অবশ্য মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করেছে। স্বপন বাবুর বাড়ী গঙ্গারামপুর থানার অশোক গ্রামে। আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে অশোক গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে বিজেপি-র হয়ে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন তাঁর স্ত্রী সরস্বতী। তাঁর অভিযোগ,  “মনোনয়ন প্রত্যাহারের কথা বলে প্রতিদিন হুমকি দিচ্ছিল তৃণমূল নেতৃত্ব। আমি মনোনয়ন তুলিনি। এরপর আমার স্বামীকে হুমকি দেওয়া হয়। গতকাল বিকেলে বাড়ি থেকে বাজার যাওয়ার পথে কয়েকজন দুষ্কৃতী বাঁশ দিয়ে মারে।” আক্রান্ত স্বপনবাবুকে প্রথমে গঙ্গারামপুর ও পরে বালুরঘাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর মাথায় আটটি সেলাই পড়েছে। স্বপনবাবুকে মারধরের পরই আতঙ্কে ছেলেকে নিয়ে ঘর ছাড়েন সরস্বতী।   ঘটনার কথা অস্বীকার করেছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব ।  ইতিমধ্যে বিজেপির পক্ষ থেকে  গঙ্গারামপুর থানায় অভিযোগ জানাও হয়েছে।  

  • দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জে মূর্তি ভাঙ্গার অভিযোগ

    ডেস্ক, ১৮ এপ্রিল  : দক্ষিণ দিনাজপুরের কুমারগঞ্জের জাখিরপুর হাটখোলা এলাকায় রাধাকৃষ্ণের মূর্তি  ভাঙ্গার অভিযোগ উঠল। আজ সকালে মূর্তি ভাঙা অবস্থায় দেখতে পায় স্থানীয়রা। তাদের অভিযোগ, গতরাতে কিছু দুষ্কৃতী এই ঘটনা ঘটিয়েছে। দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়েছে।এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে।  খবর পাওয়া মাত্র  ঘটনাস্থানে পৌঁছায় কুমারগঞ্জ থানার পুলিশ। নববর্ষের প্রথম দিন থেকে কুমারগঞ্জের জাখিরপুর হাটখোলা এলাকায় শুরু হয় বাৎসরিক হরিবাসর অনুষ্ঠান। গতরাতে অনুষ্ঠান শেষে সকলে যে যার বাড়ি ফিরে যায়। আজ দুপুরে মহাপ্রভু ভোগের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার কথা ছিল। অভিযোগ, গতরাতে সবাই চলে যাওয়ার পর সেখানে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থানে আসেন কুমারগঞ্জ থানার ওসি। এলাকায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়। এই বিষয়ে সংবাদমাধ্যমের কাছে মুখ খুলতে চায়নি পুলিশ।

  • বংশীহারী থানায় তীর ধনুক ও কুড়ুল নিয়ে বিক্ষোভে আদিবাসী সমাজ

    ডেস্ক, ১৫ই এপ্রিলঃ  এক আদিবাসীর সমাধি থেকে মাথা কেটে নেওয়ার প্রতিবাদে এবং   মৃতদেহের মাথা ফেরানোর দাবিতে তির-ধনুক নিয়ে বংশীহারী থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখালেন আদিবাসী সমাজ । এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগ ছ’জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের গঙ্গারামপুর মহকুমা আদালতে তোলা হলে দু’জনকে ছ’দিনের পুলিশ হেপাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।  ঘটনার বিবরণে জানা যায়  গতকাল বিকালে বংশীহারী থানার কইল শ্মশান এলাকার  নিমাই হাঁসদা বলে এক আদিবাসীর  সমাধি থেকে দেহের মাথা তুলে নেওয়ার ঘটনা ঘটে।  পাশের জয়দেবপুর এলাকার গ্রামবাসীরা এই কাজ করেছেন বলে অভিযোগ। এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর  ওই এলাকার আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়েন । গতকাল সকাল হতেই কইল এলাকার কয়েকশো আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ হাতে তির-ধনুক ও কুড়ুল নিয়ে বংশীহারী থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান এবং দোষীদের  শাস্তির দাবি জানান।   ঘটনার তদন্তে নেমে ছ’জনকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। আজ তাদের আদালতে তোলা হলে দু’জনকে ছ’দিনের পুলিশ হেপাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হলেও, আজ আদিবাসীরা দাবি করেন কবর থেকে তোলা মৃতদেহের মাথা ফেরত দিতে হবে। এই দাবিতে ফের থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান। তাদের দাবী  অভিযুক্তদের তাঁদের সামনে পেশ করতে হবে আর মাথা ফেরত দিতে হবে। এপ্রসঙ্গে গঙ্গারামপুরের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক জানান , “অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে  ছ’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  

  • বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের টাকা না না মেলায় রাজ্য সড়ক অবোরোধ।

    তপন, ১০ এপ্রিল : বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের টাকা না মেলায় বিক্ষোভে দক্ষিণ দিনাজপুরের তপন থানার ভিকাহার এলাকার গ্রামবাসীরা। তার আজ  রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন।  অভিযোগ, আজ পর্যন্ত  বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের  টাকা দেওয়া হয়নি। অবরোধের খবর পেয়ে ঘটনাস্থানে যায় তপন থানার পুলিশ। প্রায় ঘণ্টা চারেক পর অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। খুব দ্রুত ক্ষতিপূরনের টাকা না পেলে  আগামীদিনে জোরদার আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন গ্রামবাসীরা। গত বছর  বন্যায় দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার অন্য ব্লকের পাশাপাশি তপন ব্লকের সাতটি গ্রামের  কয়েক হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়। বন্যার পর ক্ষতিপূরণের জন্য স্থানীয় পঞ্চায়েত অফিসের মাধ্যমে বিডিও  অফিসে আবেদন জানানো হয়। কিন্তু ক্ষতিপূরণের আশ্বাস  সত্ত্বেও  সাত মাস পেরিয়ে  গেলেও ক্ষতিপূরণ মেলেনি। আজ ক্ষতিপূরণের দাবিতে কয়েকশো গ্রামবাসী হারদিঘি এলাকায় মালদা-তপন রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। অবরোধের জেরে আটকে পরে অনেক গাড়ি। খবর পেয়ে এলাকায় যায় তপন থানার পুলিশ। গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেও অবরোধ তুলতে ব্যর্থ হয় তারা। পরে প্রশাসনের তরফে আশ্বাস পেয়ে প্রায় চার ঘণ্টা পর পর অবরোধ তোলা হয়। বিক্ষোভকারীদের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে , বন্যায় তাঁদের প্রচুর ক্ষতি হয়েছে। ঘর-বাড়ি ভেঙে গিয়েছে । ক্ষতিপূরণের জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো সত্ত্বেও   শুধু আশ্বাস ছাড়া কিছুই পাওয়া যায়নি। এখন নেতারা বলছেন,  ভোট না মিটলে   এখন ক্ষতিপূরণ দেওয়া সম্ভব নয়। তাই আজ পথ অবরোধ করা হয়েছে।  

  • দক্ষিন দিনাজপুর জেলা পরিষদে মনোনয়নকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে

    ডেস্ক, ৯ এপ্রিল : দক্ষিন দিনাজপুর জেলা পরিষদে একই আসনের জন্য দু’জন তৃণমূল প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিলেন বালুরঘাট মহকুমাশাসক অফিসে। এই  মনোনয়ন জমাকে কেন্দ্র করে ফের তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে এল দক্ষিণ দিনাজপুরে। বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ তথা তৃণমূল  নেত্রী অর্পিতা ঘোষ গোষ্ঠীকোন্দলের ব্যাপার অস্বীকার করেছেন।  তিনি জানিয়েছেন যে ব্যক্তিগতভাবে যে কেউই মনোনয়ন জমা দিতে পারেন। কিন্তু , দলের সিদ্ধান্তই শেষ কথা। সেখানে কোনও ব্যক্তি বড় নয়। আজ তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ  থেকে আজ বালুরঘাট মহকুমাশাসক অফিসে জেলা পরিষদের ১৮টি আসনের মধ্যে ৯টি আসনে মনোনয়ন জমা দেয় । বাকি ৯টি আসনের মনোনয়ন জমা দেওয়া হয় গঙ্গারামপুর মহকুমাশাসক অফিসে। জানা যায় , বালুরঘাট জেলা পরিষদ (৯ নম্বর আসন)-এ তৃণমূলের তরফে প্রার্থী করা হয়েছে শিপ্রা নিয়োগী(পাল)-কে। অন্যদিকে এই আসনের জন্য আজ মনোনয়ন জমা দিয়েছেন গতবারের জয়ী তৃণমূল প্রার্থী মনোরমা দাসও। তাঁকে এবার টিকিট দেয়নি দল। দলের অনুমতি ছাড়াই তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেন মনোরমা। তিনি বলেন, “আমি গতবার জিতেছিলাম। তাই, মনোনয়ন জমা দিয়েছি। মুখ্যমন্ত্রী চাইলেই লড়ব।” এক আসনে তৃণমূলের দুই প্রার্থী মনোনয়ন জমা দেওয়ায় গোষ্ঠীকোন্দল প্রকাশ্যে এসেছে।  

  • উত্তর দিনাজপুরে তৃণমূল নেতার বাড়িতে হামলার অভিযোগে বিজেপির দিকে

    ডেস্ক ঃ তৃণমূল নেতার বাড়িতে হামলার অভিযোগে বিজেপির বিরুদ্ধে। অভিযোগ উত্তর দিনাজপুরের কালিয়াগঞ্জে তৃণমূলের জেলা পরিষদ প্রার্থী অসীম ঘোষের বাড়িতে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। চলে ইটবৃষ্টি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিস। কালিয়াগঞ্জে রাজনৈতিক অসৌজন্যের তেমন সাম্প্রতিক নজির নেই। তেমন জায়গায় এই হামলায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে।  জানা গিয়েছে, শুক্রবার কালিয়াগঞ্জ বিডিও অফিসে মনোনয়ন পেশের কাজ চলছিল। মনোনয়ন পেশ করে ফেরার সময় অসীমবাবুর বাড়িতে হামলা চালায় বিজেপি কর্মীরা। ভাঙচুর করা হয় স্থানীয় তরঙ্গপুর ক্লাবের সামনে দাঁড়ানো কয়েকটি মোটরসাইকেলে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিস। তবে ততক্ষণে এলাকা ছেড়েছে দুষ্কৃতীরা। 

  • মনোনয়নপত্র তোলা ও জমাকে কেন্দ্র করে তৃনমূলের বাধায় চোপড়া ও ইটাহার বিডিও অফিসে ভাঙচুর

    ডেস্ক, ৫ এপ্রিল : মনোনয়নপত্র তোলা ও জমাকে কেন্দ্র করে আজ উত্তরদিনাজপুরের  চোপড়ার বিডিও অফিস চত্বর ও ইটাহার বিডিও অফিসে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল।  বিরোধীদের অভিযোগ, মনোনয়ন তুলতে ও জমা দিতে বাধা দিচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা। বিডিও  অফিসের বাইরে তাঁদের মারধর করা হচ্ছে। ঘটনার প্রতিবাদে আজ  বিজেপি কর্মীরা ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক ও ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে । পরে উভয় ক্ষেত্রে  পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে,  নামানো হয়েছে  র‍্যাফ । মনোনয়ন তোলা ও জমাকে কেন্দ্র করে উত্তর দিনাজপুরের প্রায় প্রতিটি ব্লকেই বিরোধী প্রার্থীদের বাধা দেওয়ার এবং মারধর করার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। গতকাল রায়গঞ্জে দুষ্কৃতীরা গুলি ও বোমা নিয়ে তাণ্ডব চালায়। সেই ঘটনায় তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে আঙুল উঠেছে। এরপর আজ চোপড়া ও ইটাহার বক্লের  তৃণমূলের বিরুদ্ধে ফের একই অভিযোগ তুলল কংগ্রেস ও বিজেপি । চোপরা ব্লকের ক্ষেত্রে বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয় যে বিডিও  অফিসের ভিতরে ঢুকে শাসকদলের দুষ্কৃতীরা বিরোধী প্রার্থীদের হুমকি দিচ্ছে। দাগি আসামীরা রাস্তায় প্রকাশ্যে আমাদের কর্মীদের আক্রমণ করছে। গলাধাক্কা দিয়ে মনোনয়নকেন্দ্র থেকে বের করে দিচ্ছে। ১৪৪ ধারা  থাকা সত্ত্বেও অবাধে গুন্ডামি করে চলেছে। আজ  সকাল থেকে চোপড়ায় নোমিনেশন জমা ও তোলাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় চলছে তৃণমূল-বিজেপি  সংঘর্ষ। পুলিশ  টিয়ারগ্যাস ছোড়ে, লাঠিচার্জ করে। নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে দিয়ে বিজেপি  প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা দিতে নিয়ে যাওয়া হলে পুলিশকে লক্ষ করে ইট ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। এতে আহত হন এক পুলিশকর্মী। বিজেপি , তৃণমূল দু’পক্ষই ইট ছোড়ে বলে অভিযোগ। জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায়। এলাকায় আসেন ইসলামপুর মহকুমা পুলিশ আধিকারিকসহ পুলিশবাহিনী। নামানো হয়  র‍্যাফ । ঘটনায় পুলিশ  দু’জনকে আটক করেছে। বিরোধীদের অভিযোগ, চোখের সামনে দুষ্কৃতীরা দাপিয়ে বেড়ালেও পুলিশ প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। তাই তারা রাস্তা অবরোধ করেছেন। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। ঘটনার প্রতিবাদে আজ ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিজেপি । পরে চোপড়া থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। নামানো হয়েছে RAF। পাশাপাশি আজ  ইটাহার ব্লক  অফিসে আজ বিজেপি  প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র জমা দিতে গেলে তাদের বাধা দেয় তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা। এরপর ইটাহার বিডিও  অফিসে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। অভিযোগ, বিজাপি  কর্মীরা তির, ধনুক, লাঠি নিয়ে বিডিও  অফিসে ভাঙচুর চালায়। আজ ইটাহার  বিডিও অফিসে মনোনয়ন জমা দিতে যান বিজেপি  কর্মীরা। অভিযোগ, তাঁদের মনোনয়নের কাগজ ছিঁড়ে ফেলেন তৃণমূল কর্মীরা। এর প্রতিবাদে পালটা হামলা চালায় বিজেপি । অভিযোগ, প্রায় হাজারখানেক বিজেপি কর্মী, সমর্থক তির, ধনুক, লাঠি নিয়ে হামলা চালায়। ভাঙচুর করা হয় বিডিও  অফিসের চেয়ার, টেবিল। আতঙ্কিত হয়ে ছোটাছুটি শুরু করে দেন দপ্তরের কর্মীরা। এই ঘটনায় ইটাহার থানার ওসি  শিবনাথ রায় সহ বেশ কয়েকজন সিভিক ভলান্টিয়ার আহত হন। ওই ঘটনার পর শাসকদলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি । পরে  ডিএসপি  প্রসাদ প্রধানের নেতৃত্বে পুলিশ গিয়ে  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

  • রায়গঞ্জে বোমা, পিস্তল হাতে বিজেপি কর্মীদের তাড়া

    ডেস্ক, ৪ এপ্রিল : উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জএ পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়নপত্র তোলাকে কেন্দ্র করে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের  বিরুদ্ধে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকা রণক্ষেত্রের চেহারা নেয়। যথেচ্ছ ভাবে গোলা গুলি চলে বলে অভিযোগ এবং বিজেপি কর্মীদের রাস্তায় ফেলে  মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।  দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায় । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে বিরাট পুলিশ বাহিনী যায় এবং র‍্যাফ নামানো হয়েছে।   ঘটনার বিবরনে জানা যায়  বেলা দুটো  আড়াইটে নাগাদ বিজেপি কর্মীরা মিছিল   করে রায়গঞ্জ  বিডিও অফিসে যখন মনোনয়নপত্র তুলতে যাচ্ছিলেন, তখন হাসপাতাল মোড়ের কাছে তাঁদের বাধা দেয় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা  বলে অভিযোগ। উভয়পক্ষের মধ্যে প্রথমে ধস্তাধস্তি এবং পরে সংঘর্ষ শুরু হয়। হাতে বোমা ও পিস্তল নিয়ে দুষ্কৃতীদের দেখা যায় বিজেপি কর্মীদের তাড়া করতে। বেধড়ক মারধর করা হয় বিজেপি কর্মীদের। কাছের বিজেপির  পার্টি অফিসেও ভাঙচুর চালানো হয়। হাসপাতালে আসা লোকজন বোমা ও গুলির শব্দে আতঙ্কে ছোটাছুটি করতে থাকেন। বন্ধ হয়ে যায় দোকানপাট। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বিরাট পুলিশ বাহিনী যায়। নামানো হয় র‍্যাফ।র‍্যাফ দেখে  পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা।     রায়গঞ্জ জেলা বিজেপির সভাপতি  অভিযোগ করেছেন যে , মনোনয়নের কাজ শুরুর দিন থেকেই তৃণমূল আশ্রিত দুস্কৃতীরা একের পর এক হামলা চালাচ্ছে  তাদের উপরে।  এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে তৃণমূল জেলা নেতৃত্ব জানিয়েছেন এবং আরও জানিয়েছেন যে দুই দল দুস্কৃতীদের গণ্ডগোলের মাঝে এরা পড়ে গিয়েছিল। দুস্কৃতীদের সাথে তৃণমূলের কোনো সংস্রব নেই।                                                                                                                                      দুস্কৃতী হাতে বোমা নিয়ে দাড়িয়ে 

  • রায়গঞ্জ ব্লকে পঞ্চায়েত নির্বাচন সুসম্পন্ন করার জন্য সর্বদলীয় বৈঠক

    ডেস্ক, ৩ এপ্রিল : উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ ব্লকে আসন্ন ত্রিস্ত্রর পঞ্চায়েত নির্বাচনকে  শান্তিপূর্ণভাবে করার জন্য গতকাল এক সর্বদলীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়  রায়গঞ্জ ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন দপ্তরে। এই বৈঠকের আহ্বায়ক রায়গঞ্জ ব্লকের সমষ্টি উন্ন্য়ন আধিকারিক অনুরাধা লামা, উপস্থিত ছিলেন রায়গঞ্জ থানার আইসি সুমন্ত বিশ্বাস এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা।    পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিনক্ষণ  প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই জেলাজুড়ে নির্বাচন পক্রিয়াকে সুসম্পন্ন করার জন্য ব্যাপক তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। রায়গঞ্জ ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন দপ্তরের অফিসকে পুলিশি নিরাপত্তার পাশাপাশি CCTV -র নজরদারিতে মুড়ে ফেলা হয়েছে । ব্লকের ১৪টি অঞ্চলের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার জন্য আলাদা আলাদা ঘরের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মনোনয়নপত্র পূরণ করা ও পাশাপাশি পরীক্ষা করার  খুঁটিনাটি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের কাছে উপস্থাপিত করেছেন বিডিও অনুরাধা লামা। বিডিও সকল রাজনৈতিক দলের কাছে আবেদন জানিয়ছেন, মনোনয়নপত্র তোলা, জমা ও প্রত্যাহারের দিন যাতে শান্তি বজায় থাকে সেদিকে লক্ষ রাখার জন্য পাশাপাশি তিনি আরও জানিয়েছেন  তার জন্য বিডিও অফিস চত্বরে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  পাশাপাশি সিসিটিভি  লাগানো হয়েছে।  

  • বালুরঘাটের পতিরামে লরির ধাক্কায় মৃত ২ মহিলা

    ডেস্ক, ১ এপ্রিল : চাল বোঝাই একটি লরি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুই মহিলা পথচারীকে  চাপা  দিল । ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও এক মহিলা। তাঁকে  চিকিৎসার জন্য বালুরঘাট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।  জানা যায় আজ দুপুরে দুর্ঘটনাটি ঘটে বালুরঘাট থানার পতিরাম এলাকার বিএসএফ  ক্যাম্পের  সামনে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থানে পৌঁছায় বালুরঘাট থানা ও পতিরাম ফাঁড়ির পুলিশ। মৃতদের নামপরিচয় এখনও জানা যায়নি। দুর্ঘটনার পর লরির চালক ও খালাসি পলাতক। মৃতদেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বালুরঘাটে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। দুপুরে বালুরঘাটের দিকে একটি চাল বোঝাই লরি আসছিল। আসার পথে পতিরাম বিএসএফ   ক্যাম্পের  গেটের সামনে লরিটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তিন মহিলা পথচারীকে ধাক্কা মেরে রাস্তার পাশে উলটে যায়। ঘটনাস্থানেই মৃত্যু হয় দু’জনের। এরপরই জাতীয় সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। মৃতদেহগুলি ক্ষতবিক্ষত হওয়ায় এখনও কাউকে সনাক্ত করা যায়নি। তবে পুলিশের  অনুমান, ওই তিন মহিলা পতিরামে হাটে আসছিলেন অথবা হাট থেকে বাড়ি ফিরছিলেন।