সারা ভারত

  • কংগ্রেসে যোগ দিলেন বিহারিবাবু ঃ আবার তুলোধোনা করলেন নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ-র

    News bazar24:   কংগ্রেসে যোগ দিলেন ‘বিক্ষুব্ধ’ বিজেপি নেতা শত্রুঘ্ন সিনহা। যোগ দিয়েই নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ-কে আরও এক বার এক হাত নিলেন তিনি। বলেন, “গণতন্ত্রকে স্বৈরতন্ত্রে পরিণত করা হয়েছে।” আরও এক ধাপ এগিয়ে শত্রুঘ্নের তোপ, প্রধানমন্ত্রীর দফতর চলছে দু’জন আর্মি এবং এক জনের শক্তি প্রদশর্নে। অন্যান্য মন্ত্রীরা স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছেন না। মোদী এবং শাহকে কটাক্ষ করেই শত্রুঘ্ন এমন মন্তব্য করেছেন বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।৭২ বছর বয়সী অভিনেতা তথা এই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বরাবরই বিজেপির সমালোচনায় মুখর হয়েছেন। দলে থেকে দলের সমালোচনা করে কার্যত কোণঠাসা হয়ে পড়েন তিনি। ২০১৪ সালে পটনা সাহিব লোকসভা কেন্দ্র থেকে দাঁড়িয়ে বিজেপির টিকিটে সাংসদ হন শত্রুঘ্ন। এর আগে রাজ্যসভা সাংসদ ছিলেন বিজেপির টিকিটেই। পরবর্তীকালে, নোটবন্দি, জিএসটি-সহ মোদী সরকারের একাধিক সিদ্ধান্তে কোঠর সমালনোচনা করতে দেখা যায় বিহারিবাবুকে। শেষ কথা এবার  কংগ্রেসের টিকিটে পটনা সাহিব থেকে লড়বেন শত্রুঘ্ন।

  • নিঃশর্তভাবে কুলভূষণ যাদবকে ফেরানোর জন্য পাকিস্তানের উপর চাপ

    newsbazar24: কূলভূষণসহ আরও ১০ জন ভারতীয় পাকিস্তানের জেলে সাজার মেয়াদ কাটিয়ে ফেলেছেন। মহম্মদ জাভেদ, আবদুল হাকিম, মুহম্মদ ইসমাইল ও সালফিকর আলি ছাড়াও ৩৮৫ জন ভারতীয় মত্সজীবী দীর্ঘদিন বন্দি অবস্থায় রয়েছেন পাকিস্তানে। ৩৯০ জন ভারতীয় বন্দি ইতিমধ্যে পাক জেলে সাজার মেয়াদ পেরিয়ে গিয়েছেন। তাঁদের প্রত্যেককে ফেরানোর জন্য পাক হাই কমিশনের উপর চাপ বাড়ানো হয়েছে বলে খবর। ভারতীয় নৌসেনার অফিসার কুলভূষণ যাদব ইতিমধ্যে পাকিস্তানের জেলে সাজার মেয়াদ পার করে ফেলেছেন।  ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক পাক হাই কমিশনের কাছে একটি মেডিকেল টিমকে ভিসা দেওয়ার দাবি তুলেছে। সেই মেডিকেল টিম পাক জেলে ভারতীয় বন্দিদের মানসিক ও শারীরিক অবস্থা পরীক্ষা করে দেখবে। ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের তরফে এও জানানো হয়েছে, পাকিস্তান চাইলে ভারতীয় জেলে প্রতিনিধি পাঠিয়ে পাক বন্দিদের মানসিক ও শারীরিক অবস্থা পরীক্ষা করে দেখতে পারে।একাধিকবার তাঁকে মুক্তির ব্যাপারে টালবাহানা করছে পাকিস্তান।পাকিস্তানের একাধিক জেলে বন্দি অবস্থায় রয়েছেন কুলভূষণ যাদবসহ প্রায় ৩৯০ জন ভারতীয়। সেই বন্দিদের উপর পাক জেলে অকথ্য অত্যাচার চালানো হয় বলেও খবর রয়েছে।৩৯০ জন ভারতীয় বন্দি ইতিমধ্যে পাক জেলে সাজার মেয়াদ পেরিয়ে গিয়েছেন। তবুও তাঁদের মুক্তির প্রসঙ্গ উঠলেই পাকিস্তান একের পর এক টালবাহানা করে চলেছে। প্রসঙ্গত, চরবৃত্তির অভিযোগে পাকিস্তানের মিলিটারি কোর্ট কুলভূষণ যাদবকে মৃত্যদণ্ডের সাজা দিয়েছিল। যদিও কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ডের বিরোধিতা করে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অফ জাস্টিস-এ আপিল করে ভারত।  কিন্তু বারবার ইসলামাবাদ সে আবেদন খারিজ করেছে। সেই মামলার শুনানি এখনও হয়নি। এর আগে একাধিকবার ইসলামাবাদের কাছে কুলভূষণের সঙ্গে দেখা করার আর্জি জানিয়েছে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক।

  • আবার কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গিরা সেনা বাঙ্কার লক্ষ করে গ্রেনেড হামলা

     Newsbazar24, ডেস্ক, ৩০ মার্চঃ দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আবার জঙ্গিরা হামলা চালাল। এবার  স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার স্থানীয় একটি শাখার সামনে সিআরপিএফের বাঙ্কার লক্ষ্য করে গ্রেনেড  চালায় জঙ্গিরা। এই ঘটনায় একজন সিআরপিএফ জওয়ান আহত হয়েছেন। এরপরই সেনা ও পুলিশ  স্থানীয়দের নিরাপদে সরিয়ে আনে। এছাড়াও আজ সকালেই বানিহালের রাম্বনের কাছে  একটি গাড়িতে বিস্ফোরণ হয়। এদিন সকালেই বানিহালে একটি পিছনে ছিল সিআরপিএফ কনভয়। সেনা কনভয় বেরিয়ে যাওয়ার পরই গাড়িতে বিস্ফোরণ ঘটে। সেনা কনভয়ের কোন গাড়ীর ক্ষতি হয়নি। কিন্তু  যে গাড়িতে বিস্ফোরণ হয়।   সেই গাড়িটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়।  গাড়ীটির চালকের  কোন খোজপাওয়া যায়নি এর পিছনে অন্য কোনও ষড়যন্ত্র রয়েছে কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই গাড়িটির চালকের খোঁজ করা হচ্ছে। প্রশ্ন উঠছে চালক কীভাবে পালিয়ে যেতে সমর্থ হল। তবে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর অনুমান যে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে গাড়ীটি ভস্মীভুত হয়েছে।    প্রসঙ্গত এই পুলওয়ামায় গত ১৪ ফেব্রুয়ারি য় জঙ্গি হামলার  ৪৪ জন সিআরপিএফ জওয়ান সেই ঘটনায় শহিদ হয়েছিলেন। তারপর ফের জঙ্গিরা বেছে নিল এই পুলওয়ামাকে। গ্রেনেড হামলায় উড়িয়ে দিতে চাইল সেনা  বাঙ্কার। ( উপরের ছবিতে পুলওয়ামায় স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার স্থানীয় একটি শাখার সামনে গ্রেনেড হামলার  পর অবস্থা এবং নীচে বিস্ফোরনে ভস্মীভুত গাড়ী। সমস্ত ছবি গুলি এ এন আই থেকে নেওয়া)    

  • নির্বাচন কমিশন স্পেশাল পুলিশ অবজ়ারভার কে কে শর্মাকে নির্বাচনের দ্বায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিল

    Newsbazar 24 ডেস্ক, ২৮ মার্চঃ নির্বাচনের দ্বায়িত্ব থেকে সরানো হল স্পেশাল অবজ়ারভার কে কে শর্মাকে। তাঁর জায়গায় আনা হচ্ছে আর এক অবসরপ্রাপ্ত আইপিএস  বিবেক দুবেকে । সঙ্গে আসছেন আরও ২৪ জন পুলিশ অবজ়ারভার। আসছেন ৪৭ জন সাধারন  অবজ়ারভারও।  নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে রাজ্যে আসার কথা ছিল স্পেশাল পুলিশ অবজ়ারভার কে কে শর্মার। কেন্দ্রীয় বাহিনীর কাজ এখন থেকে তাঁরই দেখার কথা ছিল। কিন্তু,  নাম ঘোষণা হওয়ার পরই শুরু হয় বিতর্ক। তৃণমূল ও বামপন্থীদের  তরফে অভিযোগ করা হয়, আর এস এস  এর সঙ্গে যোগ আছে স্পেশাল পুলিশ অবজ়ারভার কে কে শর্মার। প্রকাশ করা হয় একটি ছবি। সূত্রের খবর, বিতর্কের জেরে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হল। তাঁর জায়গায় স্পেশাল পুলিশ অফিসার করে পাঠানো হচ্ছে বিবেক দুবেকে। বিবেক দুবে ১৯৮১ ব্যাচের  অবসরপ্রাপ্ত  আইপিএস  বহুদিন সিবিআই-তে ছিলেন । কর্মজীবনে তিনি অফিসার হিসাবে পরিচিত ছিলেন।  গুজরাতের একটি গণধর্ষণের ঘটনায় দোষীদের চিহ্নিত করে যাবতীয় তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করে আদালতে পেশ করার ফলে  সাজা হয় অপরাধীদের। সেই মামলায় ।  নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, এবার তাঁর হাতেই দায়িত্ব পড়তে চলেছে পুলিশ অবজ়ার্ভারের। কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিষয়টি দেখবেন তিনিই। ইতিমধ্যেই রাজ্যে  ১০  কম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী চলে এসেছে । কলকাতা সহ বেশ কয়েকটি জেলায় শুরু হয়ে গেছে রুটমার্চ। তারপরও কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে উঠছে একাধিক অভিযোগ। বিরোধীদের বক্তব্য, কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঠিক ব্যবহার করা হচ্ছে না। আজ রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দপ্তরে এসে সিপিএম নেতা রবীন দেব অভিযোগ করেন। অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিষয়টি মুখ্য নির্বাচন  আধিকারিক আরিজ আফতাবের দেখার কথা থাকলেও, তা দেখছে রাজ্য পুলিশ। অন্যদিকে, তৃণমূলের অভিযোগ, অতি সক্রিয়তা দেখাচ্ছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে  অভিযোগ  পালটা অভিযোগে প্রাক নির্বাচনী  অবস্থায়  সরগরম রাজ্য রাজনীতি। (ছবিতে বিবেক দুবে নূতন দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত স্পেশাল পুলিশ অবজ়ারভার এবং অপসারিত স্পেশাল পুলিশ অবজ়ারভার কে কে শর্মা)

  • জানেন কি বিজেপিতে যোগ দিয়ে জয়াপ্রদা কি বললেন ?

    newsbazar24: কিছুদিন থেকেই রাজনৈতিক মহলে জল্পনা চলছিল জয়াপ্রদা বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন, মঙ্গলবার সেই জল্পনাই সত্যি হল। ১৯৯৪ সালে তেলগু দেশম পার্টির হাত ধরে রাজনীতিতে প্রবেশ,ভোটে জিতে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হন।২০০৪ সালে উত্তরপ্রদেশের রামপুর লোকসভা আসন থেকে সমাজবাদী পার্টির টিকিটে ভোটে জেতেন বলিউডের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী।প্রথমবার সংসদীয় রাজনীতিতে প্রবেশ ১৯৯৬ সালে।তারপর চন্দ্রবাবুর সঙ্গে গোলমালের জেরে তিনি তেলগু দেশম পার্টি ছেড়ে যোগদেন সমাজবাদী পার্টিতে।তাতেও সমস্যা মেটেনি,সমাজবাদী পার্টিতেও তাঁর সঙ্গে দলীয় নেতৃত্বের মতবিরোধ তৈরি হয়। ২০১০ সালে তাঁকে মুলায়ম সিং যাদব দল থেকে বহিষ্কার করেন। ২০০৪ সালে উত্তরপ্রদেশের রামপুর লোকসভা আসন থেকে সমাজবাদী পার্টির টিকিটে ভোটে জেতেন বলিউডের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী।এবারও নির্বাচনের মুখে বিজেপিতে যোগদান করায়, জয়াপ্রদার প্রার্থী হওয়া নিয়ে নতুন করে জল্পনা শুরু হয়েছে। আবার কি তিনি রামপুরে প্রার্থী হবেন, সেই প্রশ্নই নতুন করে ঘুরতে শুরু করেছে উত্তর প্রদেশের রাজনৈতিক মহলে।রামপুরে যদি বিজেপি তাঁকে প্রার্থী করে, তাহলে জমজমাট লড়াই হবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। কারণ, ওই আসনে সপার প্রার্থী আজম খান। আর এই আজম খানের সঙ্গে ২০০৯ সালেই বিবাদ বেঁধেছিল জয়াপ্রদার। জয়াপ্রদা অভিযোগ করেছিলেন, আজম খান তাঁকে বদনাম করতে চাইছেন। তাই তাঁর নগ্ন ছবি ছড়িয়ে দিয়েছে আজম খান। সেই সময় এ নিয়ে ব্যাপক জলঘোলা হয়েছিল। তখন তাঁরা দুজনেই সপার সদস্য। জয়াপ্রদা বলেছেন, ''সিনেমা হোক বা রাজনীতি, আমি সবসময় আমার ১০০ শতাংশ দিয়েছি। তিনি প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। বলেছেন, নরেন্দ্র মোদীর মতো নেতার সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়ে তিনি খুশি।

  • অবশেষে ভারতীয় জনতা পার্টি তাদের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করল ১২৮ জনের

    ডেস্ক, ২১ মার্চঃ দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর ভারতীয় জনতা পার্টি  বৃহস্পতিবার তাদের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করল ।  বিজেপির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটির সচিব জে পি নাড্ডা স্বাক্ষরিত যে তালিকাটি প্রেস রিলিজ হিসাবে দেওয়া হয়েছে  তাতে ১৮২ জনের নাম রয়েছে। তালিকায় সর্বপ্রথমে রয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শ্রীনরেন্দ্র দামোদর দাস মোদীর নাম তিনি বারাণসী থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। দ্বিতীয় নামটি রয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত অনিলচন্দ্র শাহ র নাম। তিনি  প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন গুজরাটের গান্ধীনগর কেন্দ্র থেকে। পশ্চিমবঙ্গের ২৮ জনের নাম রয়েছে সেই তালিকায়। উল্লেখযোগ্য দিলীপ ঘোষ মেদিনীপুর থেকে , বাবুল সুপ্রিয় আসানসোল থেকে, ব্যারাকপুর থেকে অর্জুন সিং, দমদম থেকে শমীক ভট্টাচার্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১ কোচবিহার নিশীথ প্রামাণিক ২ আলিপুরদুয়ার জন বার্লা ৩ জলপাইগুড়ি জয়ন্ত রায় ৪ রায়গঞ্জ দেবশ্রী চৌধুরী ৫ বালুরঘাট সুকান্ত মজুমদার ৬ মালদহ উত্তর খগেন মুর্মু ৭ মালদহ দক্ষিণ শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী ৮ কৃষ্ণনগর কল্যাণ চৌবে ৯ ব্যারাকপুর অর্জুন সিং ১০  দমদম শমীক ভট্টাচার্য ১১ বারাসত মৃণালকান্তি দেবনাথ ১২ বসিরহাট সায়ন্তন বসু ১৩ জয়নগর অশোক কাণ্ডারি ১৪ মথুরাপুর শ্যামাপ্রসাদ হালদার ১৫ যাদবপুর অনুপম হাজরা ১৬ কলকাতা দক্ষিণ চন্দ্রকুমার বসু ১৭ কলকাতা উত্তর রাহুল সিনহা ১৮ শ্রীরামপুর দেবজিৎ সরকার  ১৯ হুগলি লকেট চট্টোপাধ্যায়  ২০ আরামবাগ তপন রায় ২১ তমলুক সিদ্ধার্থ নস্কর ২২ ঘাটাল ভারতী ঘোষ ২৩ ঝাড়গ্রাম কুনার হেমব্রম ২৪ মেদিনীপুর দিলীপ ঘোষ ২৫ বিষ্ণুপুর সৌমিত্র খান ২৬ বর্ধমান পূর্ব পরেশচন্দ্র দাস ২৭ আসানসোল বাবুল সুপ্রিয় ২৮ বীরভূম দুধকুমার মণ্ডল

  • মুম্বাইতে ফুট ওভারব্রিজ ভেঙে মৃত ৫ ও আহত ৩৬ জন

    ডেস্ক, ১৪ মার্চঃ   মুম্বইয়ের ছত্রপতি শিবাজি টারমিনাস রেল স্টেশনের কাছে  ফুট ওভারব্রিজ ভেঙে ২ মহিলা-সহ ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। কমপক্ষে ৩৬ জন আহত হয়েছেন বলে খবর । মুম্বই পুলিশের তরফ থেকে  জানানো হয়েছে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া  হয়। ছত্রপতি শিবাজি  স্টেশনের  প্ল্যাটফর্মে প্রবেশ করতে যে ওভারব্রিজ দিয়ে যাওয়া হয়  হয় সেটি ভেঙে পড়েছে। ওই এলাকার ট্রাফিক কিছুটা বিঘ্নিত হয়েছে। গত মাসে জুলাই মাসে অন্ধেরিতে রেল ব্রিজ ভেঙে পড়ে। তারপর থেকে ৪৪৫টি ওভারব্রিজের অডিট করা হয়।   জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর একটি দল উদ্ধারকার্যে হাত দিয়েছে। রয়েছেন মুম্বাই পুলিশের পদস্থ কর্তারাও। প্রথমে বলা হয়েছিল ১-১২ জন মারা গিয়েছেন পদপিষ্ট হয়ে। পরে সেই দাবি নাকচ করে দেয় পুলিশ। মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডনবিশ টুইট করে বলেন, "মুম্বাইয়ের টাইমস অব ইন্ডিয়া ভবনের কাছে এমন মর্মান্তিক ঘটনার খবর শুনে আমি অত্যন্ত ব্যথিত। সকলে মিলে উদ্ধারকার্যে হাত লাগিয়েছে। আশা করি, খুব তাড়াতাড়িই সুষ্ঠুভাবে কাজটি সম্পন্ন হবে।  মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী বিনোদ তাওড়ে বলেন, "সেতুর অবস্থা যে খারাপ ছিল, তেমনটা নয়। একটি সংস্কারের দরকার ছিল। সেই কাজটিই চলছিল। কাজটি চলাকালীন কেন সেতুটি বন্ধ ছিল না, তা নিয়েও তদন্ত হবে"।   

  • রমজান মাসে জাতীয় নির্বাচন নিয়ে বিতর্ক ‘ভীষণ বিরক্তিকর' বললেন বিখ্যাত গীতীকার ও চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতার

    Newsbazar 24 ডেস্ক, ১২ মার্চঃ তৃণমূল কংগ্রেস নেতা ও কলকাতা মেয়র ফিরহাদ হাকিম আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের দীর্ঘ সময়সূচী নিয়ে প্রশ্ন তুলে সাত দফা ভোটের সমস্যা নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন , বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তরপ্রদেশে রমজানের মাসে ভোটগ্রহণ খুব কঠিন। এই প্রসঙ্গে বিখ্যাত গীতীকার  ও চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতার রমজান মাসে  জাতীয় নির্বাচন নিয়ে বিতর্ককে ‘ভীষণ বিরক্তিকর' বলে মন্তব্য করলেন । গতকাল রাতে এক টুইট বারতায়  জাভেদ আখতার জানিয়েছেন , রমজান এর সঙ্গে নির্বাচনকে জড়িয়ে যে আলোচনা হচ্ছে তা এককথায় ভীষণই বিরক্তিকর। এই ধরনের আলোচনা প্রকৃত ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে  বিকৃত ও সংকীর্ণ মানসিকতার পরিচায়ক  যা আমার কাছে বিরক্তিকর, অসহনীয় এবং অস্বস্তিকর। এক মিনিটের  জন্যও নির্বাচন  কমিশনের এই বিষয়টিকে পাত্তা দেওয়া উচিত নয়।” এদিকে সোমবার হায়দরাবাদের সংসদ সদস্য এবং এআইএমআইএমের  (ALL India Majlish-E- Ittehadual Muslimme lনেতা আসাদউদ্দিন ওয়াইসিও  টুইটে  জানিয়েছেন রমজান মাসে ভোটে অসুবিধা এই কথা বলে মুসলিমদের অপমান করা হচ্ছে এবং এটাকে নিয়ে ‘সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও অপ্রয়োজনীয় বিতর্ক' তৈরী করা হচ্ছে । তিনি আরও লিখেছেন “রোজা রাখা মুসলমানদের জন্য বাধ্যতামূলক। আমরা রোজা পালন করার সময় রান্না করি, কাজ করি, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখি এবং পরিবারের যত্ন নিই। তাহলে রমজান মাসে ভোট করা যাবে না  এটা বলা আসলে মুসলমানদেরই অবমাননা করা।”  (ছবিতে বিখ্যাত গীতীকার  ও চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতার ও সংসদ সদস্য   ALL India Majlish-E- Ittehadual Muslimmen নেতা আসাদউদ্দিন ওয়াইসিও)

  • এক নজরে জেনে নিন কোন জেলায় কবে ভোট

    newsbazar24: *১১ এপ্রিল* প্রথম দফায় পশ্চিমবঙ্গের লোকসভা কেন্দ্রে ভোট হবে *কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে*। *১৮ এপ্রিল* দ্বিতীয় দফায় ভোট নেওয়া হবে আসনে *জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং ও রায়গঞ্জে*। *২৩ এপ্রিল* তৃতীয় দফায় ভোট গ্রহণ হবে পাঁচটি আসনে। সেগুলি হল,- *বালুরঘাট, মালদহ উত্তর, মালদহ দক্ষিণ, জঙ্গিপুর ও মুর্শিদাবাদ*। *২৯ এপ্রিল* চতুর্থ দফায় আটটি আসনে ভোট হবে বাংলায়। সেগুলি হল,- *বহরমপুর, কৃষ্ণনগর, রাণাঘাট, বর্ধমান পূর্ব, বর্ধমান-দুর্গাপুর, আসানসোল, বোলপুর ও বীরভূম* । *৬ মে* পঞ্চম দফায় যে সাতটি আসনে ভোট নেওয়া হবে সেগুলি হল, *বনগাঁ, বারাকপুর, হাওড়া, উলুবেড়িয়া, হুগলি, শ্রীরামপুর, আরামবাগ* । *১২ মে* ষষ্ঠ দফায় বাংলার আরও আটটি আসনে ভোট হবে। ওই আসনগুলি হল, *তমলুক, কাঁথি, ঘাটাল, মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর ও পুরুলিয়া* । ১৯ মে সপ্তম ও শেষ দফায় পশ্চিমবঙ্গে ৯ টি আসনে ভোট নেওয়া হবে। ওই ৯ টি লোকসভা কেন্দ্র হল, দমদম, বারাসত, বসিরহাট, জয়নগর, মথুরাপুর, ডায়মন্ডহারবার, যাদবপুর, কলকাতা দক্ষিণ ও কলকাতা উত্তর।

  • এই প্রথমবার পশ্চিমবঙ্গে ৭ দফায় লোকসভা ভোট

    newsbazar24: এই প্রথমবার পশ্চিমবঙ্গে ৭ দফায় লোকসভা ভোট। রাজ্যে লোকসভা নির্বাচন ৭ দফায়।১১ এপ্রিল, প্রথম দফায় ভোট  (রাজ্যের ২টি আসনে ভোট)।১৮ এপ্রিল,দ্বিতীয় দফায় ভোট (রাজ্যের ৩টি আসনে ভোট)। ২৩ এপ্রিল,তৃতীয় দফায় ভোট (রাজ্যের ৫টি আসনে ভোট)।২৯ এপ্রিল,চতুর্থ দফায় ভোট (রাজ্যের ৮টি আসনে ভোট)।৬ মে,পঞ্চম দফায় ভোট (রাজ্যের ৭টি আসনে ভোট)।১২ মে, ষষ্ঠ দফায় ভোট (রাজ্যের ৮টি আসনে ভোট)। ১৯ মে,সপ্তম ও শেষ দফায় ভোট (রাজ্যের ৯টি আসনে ভোট। ফলাফল ঘোষণা- ২৩ মে।