আমদানী রপ�তানি

  • তেলের ট্যাঙ্কারের ‘হামলা’, প্রাণ বাঁচাতে জলে ঝাঁপ দিল নাবিকরা: হেলিকপ্টার পাঠানো হয়েছে বন্দর-ই-জসক থেকে

    news bazar24:  দু'টি তেলের ট্যাঙ্কারের (Oil tanker) উপরে আক্রমণ করে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে ওমান উপসাগরে (Gulf of Oman)। ওই দুই ট্যাঙ্কারে উপস্থিত নাবিকদের ট্যাঙ্কার থেকে নিরাপদে বৃহস্পতিবার ইরানের উপকূলে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই দুর্ঘটনার জেরে বিশ্ববাজারে তেলের দাম গগনচুম্বী হয়ে গেল। গত সপ্তাহ কয়েকের মধ্যে এই ধরনের দু'টি ঘটনা ঘটল। যার ফলে তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ল। মে মাসের ট্যাঙ্কার দুর্ঘটনার জন্য অভিযোগের আঙুল উঠেছে ইরানের দিকে। ইরান জানিয়েছে, আগুন লাগার পরে দুই জাহাজ থেকে ৪৪ জন নাবিককে উদ্ধার করা হয়েছে। আগুন লাগাকে ‘আক্রমণ' বলে দাবি করা হয়েছে। নরওয়ের উপকূলবর্তী কর্তৃপক্ষের তরফে থেকে জানানো হয়েছে, নরওয়ের ট্যাঙ্কার ফ্রন্ট অলটেয়ারে তিনটি বিস্ফোরণ ঘটে, যাকে ‘আক্রমণ' আখ্যা দেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয় আক্রান্ত জাহাজটি হল সিঙ্গাপুরের কোকুকা কারেজিয়াস। ইরানের রাজ্য সংবাদমাধ্যমের তরফে জানানো হয়েছে, স্থানীয় সময় সকাল ৮.৫০-এ হামলার সময় ফ্রন্ট অলটেয়ার দক্ষিণ ইরানের বন্দর-ই জসকের থেকে ২৫ নটিক্যাল মাইল দূরে অবস্থান করছিল। তাদের সরকারি সংবাদ সংস্থা IRNA জানিয়েছে, ওই জাহাজ ইথানল নিয়ে কাতার থেকে তাইওয়ানের দিকে যাচ্ছিল।  সংস্থার বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘জাহাজে আগুন লাগার পর থেকে ২৩ জন নাবিক জলে ঝাঁপ দেন। পার্শ্ববর্তী একটি জাহাজ তাঁদের উদ্ধার করে ইরানের উদ্ধারকারী দলের হাতে তুলে দেয়।'' ওই বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, ‘‘প্রথম দুর্ঘটনার পরে দ্বিতীয় আগুন লাগার ঘটনাটি ঘটে বন্দর থেকে ২৮ নটিক্যাল মাইল দূরত্বে সকাল ৯.৫০-এ।'' পানামার পতাকা লাগানো কোকুকা কারেজিয়াস সৌদি আরব থেকে সিঙ্গাপুর যাচ্ছিল মেথানল নিয়ে। ওই জাহাজ থেকেও ২১ জন নাবিক জলে লাফ দেন। পরে তাঁদের উদ্ধার করা হয় বলে IRNA-র তরফ থেকে জানানো হয়। সিঙ্গাপুরের BSM Ship Management যাদের জাহাজ কোকুকা কারেজিয়াস, তারা জানিয়েছে, ‘‘নিরাপত্তা প্রসঙ্গে পূর্ণ মাত্রার সুরক্ষা চাওয়া হয়েছে।'' পাশাপাশি জানানো হয়, ‘‘দুর্ঘটনায় ওই ২১ জন নাবিককে উদ্ধার করা হলেও পরিত্যক্ত অবস্থায় থাকা জাহাজটির ক্ষতি হয়েছে।'' কোকুকা কারেজিয়াসের একজন নাবিক সামান্য আহত হয়েছেন। তাঁকে দ্রুত প্রাথমিক শুশ্রুষা দেওয়া হয়েছে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ওই জাহাজ সংযুক্ত আরব আমিরশাহি থেকে ৭০ নটিক্যাল মাইল ও ইরানের উপকূল থেকে ১৪ নটিক্যাল মাইল দূরে রয়েছে। তেহরান জানিয়েছে, পরবর্তী তদন্তের জন্য তারা একটি হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে বন্দর-ই-জসক থেকে। US Fifth Fleet জানিয়েছে, ‘‘আমরা ওমান উপসাগরে ট্যাঙ্কারগুলির উপরে হওয়া হামলার ব্যাপারে ওয়াকিবহাল। মার্কিন নৌসেনা ওই এলাকায় দু'টি বিপদবার্তা পেয়েছে। একটি স্থানীয় সময় ৬.১২-তে। অন্যটি ৭.০০টার সময়।'' United Kingdom Marine Trade Operations (UKMTO) তাদের ওয়েবসাইটে এ বিষয়ে কোনও বিস্তারিক তথ্য না দিয়ে কেবল জানিয়েছে, ‘‘ব্রিটেন‌ ও তার সহযোগীরা এই মুহূর্তে তদন্ত করছেন।'' বিশ্বব্যাপী তেলের দাম ওই হামলার খবর প্রকাশ্যে আসার পরেই চার শতাংশ বেড়ে যায়। এক ব্যারেল প্রমাণ ব্রেন্ট তেলের দাম তিন শতাংশ বেড়ে গিয়ে দাঁড়ায় ৬১.৭৪ ডলার। ওমান উপসাগর strategic Strait of Hormuz-এর বিপরীত প্রান্তে অবস্থিত। এখান দিয়ে ১৫ মিলিয়ন ব্যারেল তেল ও তেল ছাড়াও বহু শত মিলিয়ন ডলার মূল্যের সামগ্রী রপ্তানি করা হয়। ১২ মে চারটি তেলের ট্যাঙ্কার— দু'টি সৌদি, একটি নরওয়ে ও একটি এমিরাতি— ওমান উপসাগরে এক হাম‌লার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বল্টন জানিয়েছেন, ইরানের নৌসেনা এই সমস্ত হামলার পিছনে রয়েছে। কিন্তু তেহরানের যুক্ত থাকার সঠিক প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে না। সংযুক্ত আরব আমিরশাহি জানিয়েছে, পাঁচ দেশের সম্মি‌লিত তদন্তের পরে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছনো গিয়েছে যে এসবের পিছনে একটি দেশ রয়েছে। কিন্তু ইরানই যে সেই দেশ, সেটা প্রমাণ করার মতো কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবারের হামলার ঠিক আগেই বুধবার ইরানের হুথি দস্যুরা দাবি করে, তারা একটি মিসাইল ছুড়েছে সৌদি আরবের এক বিমানবন্দরে। আহবা বিমানবন্দরে ওই হামলায় ২৬ জন আহত হয়েছেন। ইরান অবশ্য সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। কিন্তু সৌদি আরব এই দাবিতে অটল, যে আসল অপরাধী ইরানই। সৌদি রাজা সলমন এ মাসের গোড়ায় Organisation of Islamic Cooperation-এর এক বৈঠকে সকলকে সতর্ক করে বলেন, উপসাগরীয় এলাকায় জঙ্গি হানা হলে তেল পরিবহন ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বিশ্বের সবচেয়ে বড় তেল রফতানিকারী দেশের সঙ্গে ইরানের সঙ্গে কটূ সম্পর্ক আজকের নয়। সৌদির তেলের পাইপলাইনে ইয়েমেনের হুথি দস্যুরা আক্রমণ করলে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক খারাপ হয়ে যায়। জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বৃহস্পতিবার তেহরানের নেতা আয়াতোল্লা আলি খামেনেই-এর সঙ্গে আলোচনায় বসেন। মার্কিন-ইরান দ্বন্দ্ব কী করে কমানো যায়, সেকথা তাঁরা আলোচনা করেন, যা নিয়ে বিশ্ব চিন্তিত।

  • 20,000 টাকা বাজেটে স্মার্টফোন কেনার পরিককল্পনা করছেন ? এক নজরে 20,000 টাকার নীচে ভারতের সেরা পাঁচটি

    news bazar24:   20,000 টাকা বাজেটে স্মার্টফোন কেনার পরিককল্পনা করছেন? এই দামে সম্প্রতি বাজারে এসেছে একগুচ্ছ নতুন স্মার্টফোন। এর ফলে কোন ফোনটি কিনবেন বুঝে উঠতে পারবেন না? এই দামের স্মার্টফোনে যেমন AMOLED ডিসপ্লে পাবেন। কয়েকটি ফোনে পাবেন ডিসপ্লের নীচে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সার।                              এক নজরে 20,000 টাকার নীচে ভারতের সেরা পাঁচটি    20,000 টাকার নীচে স্মার্টফোন Gadgets 360 রেটিং  (10 এর মধ্যে) দাম Poco F1 8 19,999 টাকা Nokia 7.1 8 19,999 টাকা Redmi Note 7 Pro 9 16,999 টাকা Samsung Galaxy A50 8 19,990 টাকা Oppo K1 8 16,990 টাকা   Poco F1 ডুয়াল সিম Poco F1 এ Android Pie অপারেটিং সিস্টেমের উপরে কোম্পানির নিজস্ব MIUI 10 অপারেটিং সিস্টেম চলবে। Poco F1 এর ভিতরে থাকবে একটি Snapdragon 845 চিপসেট। এর সাথেই থাকবে 6GB/8GB RAM আর 64GB, 128GB আর 256GB ইন্টারনাল স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Poco F1 এ থাকবে একটি 12MP Sony IMX363 সেন্সার। এর সাথেই এই ফোনের পিছনে থাকবে একটি 5 মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারিও সেন্সার। Poco F1 এর সামনে থাকবে একটি 20 মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। ফেস আনলক ফিচার সহ লঞ্চ হয়েছে নতুন Poco F1। কানেক্টিভিটির জন্য Poco F1 এ থাকবে 4G+, VoLTE, Wi-Fi 802.11ac, Bluetooth v5.0, USB Type-C, 3.5 হেডফোন জ্যাক। Poco F1 এর ভিতরে থাকবে একটি 4,000 mAh ব্যাটারি। Quick Charge 3 এর সাহায্যে খুব সহজেই এই ফোনের ব্যটারি চার্জ করে নেওয়া যাবে। Nokia 7.1 ডুয়াল সিম Nokia 7.1 এ রয়েছে Android Oreo অপারেটিং সিস্টেম। এই ফোনে রয়েছে 5.84 ইঞ্চি FHD+ ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লের অ্যাসপেক্ট রেশিও 19:9। Nokia 7.1 এর ভিতরে থাকবে Qualcomm Snapdragon 636 চিপসেট, 4GB RAM আর 64GB স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Nokia 7.1 ফোনে থাকছে 12MP+5MP ডুয়াল ক্যামেরা সেন্সার। এই ক্যামেরায় থাকছে Zeiss লেন্স। এছাড়াও ফোনের পিছনের ক্যামেরায় থাকছে ইলেকট্রনিক ইমেজ স্টেবিলাইজার। ফোনের সামনে থাকছে 8MP সেলফি ক্যামেরা। কানেক্টিভিটির জন্য Nokia 7.1 এ থাকবে 4G LTE, Wi-Fi 802.11ac, Bluetooth v5.0, GPS/ A-GPS, GLONASS, NFC, USB Type-C আর একটি 3.5 মিমি হেডফোন জ্যাক। ফোনের ভিতরে রয়েছে একটি 3060 mAh ব্যাটারি। Nokia 7.1 এর ওজন 159 গ্রাম। Redmi Note 7 Pro Redmi Note 7 Pro তে থাকবে একটি 6.3 ইঞ্চি FHD+ ডিসপ্লে। ডিসপ্লের উপরে থাকছে ছোট নচ। ফোনের ভিতরে থাকছে Snapdragon 675 চিপসেট, 6GB পর্যন্ত RAM আর 128GB পর্যন্ত স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Redmi Note 7 Pro তে থাকছে ডুয়াল ক্যামেরা সেট আপ। প্রাইমারি ক্যামেরায় থাকছে 48 মেগাপিক্সেল সেন্সর। সাথে থাকছে একটি 5 মেগাপিক্সেল ডেপ্ত সেন্সর। সেলফি তোলার জন্য একটি 13 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ব্যবহার করেছে Xiaomi। সব ক্যামেরাতেই থাকছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সাপোর্ট। Android 9 Pie অপারেটিং সিস্টেমের উপরেই Redmi Note 7 Pro ফোনে চলবে কোম্পানির নিজস্ব MIUI 10 স্কিন। থাকছে একটি 4,000 mAh ব্যাটারি আর ফাস্ট চার্জ সাপোর্ট। Samsung Galaxy A50 Samsung Galaxy A50 ফোনে লেটেস্ট Android Pie অপারেটিং সিস্টেমের উপরেই থাকছে কোম্পানির নিজস্ব One UI স্কিন। Galaxy A50 ফোনে থাকছে 6.4 ইঞ্চি FHD+ Super AMOLED ডিসপ্লে। ফোনের ভিতরে থাকছে Exynos 9610 চিপসেট, 6GB পর্যন্ত RAM আর 64GB স্টোরেজ আর 4,000 mAh ব্যাটারি। থাকছে USB Type-C আর 15W ফাস্ট চার্জিং। Galaxy A50 ফোনের পিছনে তিনটি ক্যামেরা ব্যবহার করেছে Samsung। ফোনের পিছনে থাকছে 25 মেগাপিক্সেল + 8 মেগাপিক্সেল + 5 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ফোনের সামনে থাকছে একটি 25 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। কোম্পানির নতুন One UI স্কিনে খুব সহজেই এক হাতে স্মার্টফোন ব্যবহার করা যায়। Super AMOLED  ডিসপ্লের জন্য এই ফোনে বিশেষ ডার্ক মোড ব্যবহার করেছে Samsung। Oppo K1 ডুয়াল সিম Oppo K1 ফোনে Android 8.1 Oreo  অপারেটিং সিস্টেম এর উপরেই চলবে কোম্পানির নিজস্ব ColorOS 5.2 স্কিন। Oppo K1 এ থাকছে একটি 6.4 ইঞ্চি FHD+  ডিসপ্লে। ফোনের ভিতরে থাকবে একটি Snapdragon 660 চিপসেট 4GB/6GB RAM আর 64GB স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Oppo K1 ফোনে থাকছে একটি 16 মেগাপিক্সেল + 2 মেগাপিক্সেলের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। সাথেক থাকছে LED ফ্ল্যাশ। সেলফি তোলার জন্য ফোনের সামনে থাকছে একটি  25 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা।  কানেক্টিভিটির জন্য এই ফোনে  4G VoLTE, Wi-Fi i 802.11 a/b/g/n/ac, Bluetooth 5.0, GPS/ A-GPS আর GLONASS ব্যবহার করেছে Oppo। থাকছে একটি 3,600mAh ব্যাটারি।

  • PM.মোদী কে কি টুইট করলেন , পাকিস্তানের প্রধান মন্ত্রী ইমরান খান ?

    ইসলামাবাদ:পিছিয়ে নেই পাকিস্তানের কূটনীতি। লোকসভা নির্বাচনে বিরাট জয়ের মুখ দেখেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, পৃথিবীর থেকে বসে আসছে শুভেচ্ছা বার্তা, এমত অবস্থায় পাকিস্তানের প্রধানা মন্ত্রী ইমরান খান পিছিয়ে নেই, তিনিও টুইট করে জানিয়েছেন অভিনন্দন। তিনি টুইট করে লিখেছেন, ''বিজেপি ও তার সহযোগী দল ভোটে জয়লাভ করার জন্য আমি প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। দক্ষিণ এশিয়ার পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য এবং এই এলাকার সমৃদ্ধির জন্য আমি তার সাথে কাজ করতে চাই।'' ''মোদির জোয়ার'' অব্যাহত, আর সেই জোয়ারে ভেসেই আবার একবার ভারতের সরকার গঠন করতে চলেছে বিজেপি।

  • মহামারীর আতঙ্ক ছড়াচ্ছে পাকিস্তানে,এর পেছনে রয়েছে দেশের কোয়াক ডাক্তাররা

    newsbazar24: সিন্ধে এইচআইভির শিকার শিশু-সহ শয়ে শয়ে মানুষ, মহামারীর আতঙ্ক ছড়াচ্ছে পাকিস্তানে , ভয়াবহ আকার নিচ্ছে এইচআইভির প্রকোপ। পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে দলে দলে অবিভাবক আসছেন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। সরকারের আন্দাজ এইচআইভি আক্রান্ত হয়েছে কমপক্ষে সিন্ধের ৪০০ জন। এদের অধিকাংশই শিশু।কী ভাবে এরকম ব্যাপক সংক্রমণ ঘটে গেল গোটা একটা প্রদেশে। সিন্ধের সরকারি আধিরারিকদের মতে এই সংকংর্মণের পেছনে রয়েছে দেশের কোয়াক ডাক্তাররা। এরাই অবশ্য পাকিস্তানের চিকিত্সা ব্যবস্থার মরুদণ্ড।পাকিস্তানে রয়েছেন ৬ লাখ কোয়াক। এর মধ্যে প্রায় ৩ লাখই সিন্ধের। মনে করা হচ্ছে সংক্রমিত সিরিঞ্জ থেকেই এরকম এক ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটে গিয়েছে।এর ফলে গোটা গোটা দেশই এখন মহামারীর আতঙ্কে কাঁপছে। কারণ সরকারি পরিসংখ্যানের বাইরে রয়ে গিয়েছে বহু আক্রান্ত। চিকিত্সকরা এখন অস্থায়ী ক্লিনিক বানিয়ে সেখানে রোগীদের রক্ত পরীক্ষা করছেন। লারকানার এক চিকিত্সক সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, দলে দলে লোক আসথেন রক্ত পরীক্ষা করতে। এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির জন্য দায়ি বেরপরওয়া চিকিত্সকরা।বহু দিন ধরে পাকিস্তানকে এইচআইভি প্রবণ দেশ হিসেবে মনে করা হয়। তলে তলে এটি ছড়িয়ে পড়ছিল যৌন কর্মী ও ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে। বর্তমানে এটি এসিয়ার দ্বিতীয় দেশে যেখান লাফিয়ে বাড়ছে এইডস।২০১৭ সালে পাকিস্তানে ২০,০০০ এইডস রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়।

  • চীনের ‘বউ বাজারে’ ক্রমেই বাড়ছে পাকিস্তানি মেয়েদের কেনাবেচা, সংখ্যা লঘু মেয়েরাই বিক্রি হচ্ছে বউ বাজারে

    News Bazar24: চীনের ‘বউ বাজারে’ ক্রমেই বাড়ছে পাকিস্তানি মেয়েদের কেনাবেচা, যার মূল উদ্দেশ্য, বিয়ে করে মেয়েদের শশুর বাড়ি নয়, তাদের গন্তব্য স্থল হয়ে চলেছে পতিতালয় ।যদিও দিন কয়েক আগে নাটক দেখাতে এই চক্রের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বলা বাহুল্য, মানুষ পাচারের (human trafficking) অন্যতম পুরনো অথচ বর্তমান পন্থাই হল বিয়ে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে, অথবা বিয়ে করেই মহিলাদের অন্যত্র বেচে (trafficking of brides) দেওয়ার পরিচিত এই কায়দা প্রতিনিয়ত বেড়ে চলছে পাকিস্তানে। পাক কর্তৃপক্ষ ক্রমবর্ধমান এই মানব পাচারের তদন্তে নেমে একটি যৌনবৃত্তির চক্রের ১২ জন সন্দেহভাজন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে বলে নাটক দেখানো দাবি করছে।খবরে প্রকাশ, এই দলের সদস্যরা পাক তরুণীদের চীনে পাচার করত। গ্রেফতার হওয়া এই ব্যক্তিদের মধ্যে আট জন চীনের নাগরিক ও চারজন পাকিস্তানের। পাকিস্তানের ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সির (FIA) শীর্ষ কর্মকর্তা জামিল আহমেদ এর কথায়, “পাকিস্তানি নারীদের চীনে পাচার করে তাঁদের দিয়ে পতিতাবৃত্তির কাজ করানোর খবর আমাদের কানে আসার পরেই এই গ্যাংয়ের উপর নজর রাখছিলাম আমরা।" তিনি বলেন, বেশ কয়েকটি গ্যাং এই কাজ করে। প্রধানত পাকিস্তানি খ্রিস্টান সংখ্যালঘু মানুষই এদের লক্ষ্যবস্তু।তবে মুসলিম মেয়ে পাচার হবার কোনো খবর এখন পর্যন্ত নেই। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (Human Rights Watch) এক সপ্তাহ আগেই জানিয়েছিল, চীনের পাক নারীদের পাচারের সাম্প্রতিক রিপোর্ট যা, তাতে পাকিস্তানকে সতর্ক হওয়া উচিত। এর পরেই জারি হয় গ্রেফতারি পরোয়ানা। এটি আরও জানায়, কমপক্ষে পাঁচটি এশীয় দেশ থেকে চীনে ‘বউ' পাচারের ঘটনা ক্রমে বাড়ছে। সূত্রে প্রকাশ, গত সপ্তাহে ফয়সালাবাদ শহরের পূর্বদিকের একটি শহরে একটি বিয়ে অনুষ্ঠানে পুলিশ হানা দেয়। সেখানে একজন খ্রিস্টান মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল । অনুষ্ঠানে চীনের একজন পুরুষ ও একজন মহিলাকে এবং একজন ভুয়ো পাদরিকে গ্রেপ্তার করা হয়। আহমেদ বলেন, “ওই গ্যাংয়ের সদস্যরা স্বীকার করেছে যে তারা কমপক্ষে ৩৬ জন পাকিস্তানী মেয়েকে চীনে পাঠিয়েছেন তাঁরা, চীনে তাঁদের পতিতাবৃত্তির জন্যই ব্যবহার করা হয়।” তিনি জানান, পূর্ব পাঞ্জাব প্রদেশের বিভিন্ন জেলাতেই এই খ্রিস্টানদের বসবাস।মূলত তাদেরকেই এই বিয়ে মোহে ফাঁসানো হচ্ছে। ।

  • ১০ লাখেরও বেশি মুসলমানকে আটকে রেখেছে চিন: বিস্ফোরক তথ্য আমেরিকার

    newsbazar24: ১০ লক্ষ্যেরও বেশি মুসলিম মানুষকে আটকে রেখেছে চিন। বন্দিশিবিরে তাঁদের আটকে রাখা হয়েছে। এমনটাই বিস্ফোরক অভিযোগ আমেরিকা। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের এশীয় নীতির দায়িত্বে থাকা র‌্যান্ডল শ্রীভল এমনটাই বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন। আর তাঁর এই মন্তব্যের কারণে চিন এবং আমেরিকার সম্পর্কে নতুন উত্তেজনা দেখা দিতে পারে বলে ধারনা করছেন পর্যবেক্ষকরা। তবে উইঘুরসহ অন্যান্য মুসলমানদের আটকে রাখার ওই বন্দিরশিবিরকে বৃত্তিমূলক শিক্ষাকেন্দ্র বলে ব্যাখ্যা করেছে কমিউনিস্ট বেজিং।বেজিংয়ের দাবি, মুসলমানদের উগ্রবাদী হুমকিকে নস্যাৎ করে দিতেই তারা বৃত্তিমূলক শিক্ষাকেন্দ্র তৈরি করেছে। পেন্টাগনে এক সংবাদ সম্মেলনে চিনের সামরিক বাহিনী নিয়ে বিস্তৃত আলোচনার সময় শ্রিভল বলেন, চিন কমিউনিস্ট পার্টি মুসলমানদের গণআটকের জন্য নিরাপত্তা বাহিনী ব্যবহার করছে। ১০ লাখ আটক বলা হলেও সত্যিকার অর্থে তারা ত্রিশ লাখ মুসলমানকে বন্দি রেখেছে বলে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন।মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করছেন শ্রিভল। তাঁর দাবি, বন্দিশিবিরে আটক থাকার পর বেরিয়ে আসা মুসলমানরা চিনের কমিউনিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে মারাত্মক নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন। অভিযোগ, বন্দিশিবিরে মুসলিমদের গাদাগাদি করে রাখা হয়। সেখানে তাদের প্রতি যে নিপীড়ন চালানো হয়, তাতে কেউ কেউ আত্মহত্যার দিকেও এগিয়ে যায় বলে মন্তব্য র‌্যান্ডল শ্রীভলের।প্রসঙ্গত চিনে মুসলিমদের উপর এমন অত্যাচারের ঘটনা নতুন কিছু নয়। সেখানে উইঘর মুসলিমদের আটকে রেখে নির্জাতন চালানো হয় বলে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠেছে বহুবার। কিন্তু আটকে রাখার কথা কখনও স্বীকার করে না লালচিন।-kolkata24x7

  • নরেন্দ্র মোদীকে কিছু পয়েন্ট ইচ্ছাকৃতভাবেই দিচ্ছে বেজিং : প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত বিবেক কাটজু

    newsbazar24:  ২০০৯ সালে মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি চিহ্নিত করতে সরব হয়েছিল ভারত। পাঠানকোট, উরি হামলার পর আদাজল খেয়ে ভারত নেমে পড়লেও চার বার ভিটো প্রয়োগ করে জল ঢেলে দেয় চিন। তবে, বুধবার তাদের ‘পদ্ধতিগত ত্রুটি’ শুধরে মাসুদকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তকমা দিতে রাজি হয়। আর এরপরই  কূটনীতিকরা চিনের এই পদক্ষেপকে ‘সুমতি’ বলেই ব্যাখ্যা করছেন। এই মুহূর্তে দক্ষিণ-এশিয়ার অন্যতম পরমাণু শক্তিধর রাষ্ট্র ভারত। জিডিপি-র নিরিখে তো বটেই, অস্ত্রভাণ্ডারের ক্ষমতাতেও প্রথম সারির দিকে রয়েছে এই একশো তিরিশ কোটির দেশটি। এই মুহূর্তে বিশ্বের দরবারে ভারতের যা অবস্থান, জলে নেমে কুমিরের সঙ্গে লড়ার চেয়ে সমীহ করাটাই প্রতিবেশী দেশের বেশি লাভজনক বলে মনে করছেন কূটনীতিকরা। অন্তত, বুধবার পাক মদত পুষ্ট মাসুদ আজহারকে রাষ্ট্রসঙ্ঘ আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণা করার পর থেকেই এভাবেই কূটনীতিকরা ভারতের সপক্ষে সজোরে ব্যাট চালাচ্ছেন। কেন? প্রাক্তন রাষ্ট্রদূত বিবেক কাটজু বলছেন, ভারতের নির্বাচনের মাঝে চিনের মত বদল অত্যন্ত রাজনৈতিক। তাঁর মতে, নরেন্দ্র মোদীকে কিছু পয়েন্ট ইচ্ছাকৃতভাবেই দিচ্ছে বেজিং। যদি তিনি ফের ক্ষমতায় ফেরেন অথবা না-ও ফেরেন চিনকে কেউ দোষারোপ করতে পারবে না। ভারতে যে দলই ক্ষমতায় আসুক বাণিজ্যিক পরিসরে আগাম ঘোড়ার চাল দিয়ে রাখল বেজিং। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শুল্কযুদ্ধে জড়িয়ে বড়সড় ধাক্কা খেয়েছে তাদের অর্থনীতি। বাধ্য হয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চিনকে জিডিপি-র লক্ষ্যমাত্রা ৬.৫ শতাংশ কমিয়ে ৬ শতাংশে আনতে হয়। ২০১৬ সালে অক্টোবরের পর মার্কিন রফতানি এক ধাক্কায় ৩.৭ শতাংশ নেমেছে। এ পরিস্থিতে বাজার চাঙ্গা করতে ভারতকেই পাখির চোখ করে এগোতে চাইছে বেজিং। সম্প্রতি বেজিংয়ের আরও নরম মনোভাবপন্ন ইঙ্গিত মিলেছে, ওবরের মানচিত্রে কাশ্মীর এবং অরুণচলকে ভারতের অংশ বলে দেখানোয়। এর আগে অরুণাচলকে ভারতের অংশ তো দূর, ওই রাজ্যে প্রধানমন্ত্রীর পা পড়লে গোঁসা হত তাদের। অরুণাচলের একাংশকে বরাবরই দক্ষিণ তিব্বতের অংশ বলে দাবি করে চিন। পাশাপাশি পাক অধিকৃত কাশ্মীরকে ভারত-বহির্ভূত অংশ হিসাবেই দেখানো হয়। ২০১৭ সালে টানা ৭২ দিনের ডোকলাম ইস্যুতে তলানিতে নামে ভারত ও চিনের কূটনৈতিক সম্পর্ক। প্রধানমন্ত্রী, বিদেশমন্ত্রী-সহ দিল্লির একাধিক প্রতিনিধির সফরে সেই ক্ষতে প্রলেপ দিতে সক্ষম হয় নয়া দিল্লি।। এ ক্ষেত্রেও দক্ষতার সঙ্গে ভারত দূরদৃষ্টতার পরিচয় দিয়েছে বলে মনে করছেন কূটনীতিকরা। পাশাপাশি, কূলভূষণ যাদব বিষয়ে বিশ্বের দরবারে সাফল্যের সঙ্গে কূটনৈতিক পরিচয় দেখিয়েছে ভারত। বিশেষজ্ঞদের দাবি, দক্ষিণ এশিয়ায় কূটনৈতিক স্তরেও ভারত যথেষ্ট প্রভাব বিস্তার করতে পেরেছে। তা হাড়েহাড়ে অনুভব করছে বেজিং-ও।ভারতের ঘাড়ের ওপর দিয়ে চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর তৈরি হয়েছে। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের উপর দিয়ে সেই করিডর যাওয়ায় রাষ্ট্রসঙ্ঘে চিনের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গেছে নয়া দিল্লিকে। আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা-সহ ভারতের একাধিক প্রতিবেশী দেশ ওবরের অন্তভুক্তি করতে সক্ষম হয়েছে চিন। ভারতকেও সেই সারিতে রাখতে বেজিং মরিয়া প্রচেষ্টা চালাচ্ছে বলে দাবি কূটনীতিকদের।সন্ত্রাস হানায় ক্ষতিগ্রস্ত  বিশ্বের প্রায় সব দেশই। ওই একটি ইস্যুতে সহমত হয়ে এক ছাদের তলায় দাঁড়িয়েছে আমেরিকা, ফ্রান্স, ব্রিটেন-সহ ছোটো বড় প্রায় সব দেশ। পুলওয়ামা হামলার পর তাদের মন জয় করতে ভারতকে সে ভাবে পরিশ্রম করতে হয়নি। অন্য দিকে ‘সব আবহাওয়ার বন্ধু’ পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে চিন কার্যত কোণঠাসা হয়ে পড়ে। রাষ্ট্রসঙ্ঘে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ক্রমাগত চাপ সৃষ্টি করায় বেজায় খাপ্পা বেজিং। কার্যত বাধ্য হয়েই বেজিংকে এই সিদ্ধান্ত নিতে হয় বলে মনে করছেন কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তবে, একাংশের মত, ভারতের একচেটিয়া বাজার ধরে রাখতেই নয়া দিল্লিকে নয়া চাল দিয়ে রাখল চিন।

  • শ্রমিকদের হার ভাঙা পরিশ্রম কমাতে উদ্যোগ নিয়েছে মনস্কামনা ইন্ডাসট্রিজ

    মালদা তথা উত্তরবঙ্গের অন্যতম ও ঐতিহ্যবাহী লেদ এর বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান "মনস্কামনা ইন্ডাসট্রিজ", এখন বিভিন্ন নামি কম্পানির টুলস ও পাওয়ার টুলস এর বিশ্বস্ত পরিবেশক তথা খুচরো ও পাইকারী বিক্রেতা ।মনস্কামনা ইন্ডাসট্রিজ এর মূখ্য কর্নধার শ্রী পরমেশ্বর লাল মুসাদ্দীর কথায়,বিভিন্ন শিল্প ক্ষেত্রে শ্রমিকদের হার ভাঙা পরিশ্রম কমাতে আবিষ্কার হয়েছে এই টুলস এর ব্যবহার।আর এই টুলসগুলি শ্রমিকদের কাছে পৌছে দিতে আমরা নামিদামি কম্পানির টুলসগুলির পরিবেশনার দায়িত্ব নিয়েছি। এই টুলসগুলির দাম কেমন এবং সার্ভিসের কি সুবিধা আছে? এই প্রশ্নগুলি সাধারন শ্রমিকদের মধ্যে উঠে আসায় "মনস্কামনা ইন্ডাসট্রিজ" পক্ষে প্রদীপ মুসাদ্দী জানান বিভিন্ন কম্পানীর পাওয়ার টুলসগুলির দাম বিভিন্ন রকম। তবে তা শ্রমিকদের নাগালের মধ্যে ।যে কোনো শ্রমিক সহজেই কিনতে পারবে আর তাছাড়া রয়েছে ওয়ারেন্টির সুবিধা।তবে আর দেরি কেন ? হার ভাঙা পরিশ্রমই বা কেন ? আজই চলে আসুন "মনস্কামনা ইন্ডাসট্রিজ"-এ।                                        "মনস্কামনা ইন্ডাসট্রিজ"                          মনস্কানা রোড,মনস্কামনা মন্দিরের পার্শে ,মালদা                           ( বিস্তারিত জানতে ভিডিও তে ক্লিক করুন............)    -advt

  • শ্রীলঙ্কার মানুষের পাশে রয়েছে ভারত, বললেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী

    newsbazar24: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইটে জানান, এই পৃথিবীতে এমন কোনও জায়গা নেই যে বর্বোরচিত সন্ত্রাসে আক্রান্ত হয়েছে। শ্রীলঙ্কার গির্জা ও হোটেলের বিস্ফোরণে কড়া সমালোচনা করেন । শ্রীলঙ্কার মানুষের পাশে রয়েছে ভারত। নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন মোদী।আজ সকালে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোর সেন্ট অ্যান্টনি গির্জা, রাজধানীর বাইরে নেগম্বো শহরের সেন্ট সাবেস্টিয়ান-সহ আর একটি গির্জা বিস্ফোরণ হয়। পাশাপাশি আরও ৩টি হোটেলেও বিস্ফোরণ হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৫৬ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। কমপক্ষে ৪০০ জন হাসপাতালে চিকিত্সাধীন। এই ঘটনায় শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মৈত্রীপলা সিরিসেনা নাগরিকের উদ্দেশে বলেন, রীতিমতো স্তব্ধ আমি। দেশবাসীকে শান্ত ও ধৈর্য থাকার বার্তা দেন তিনি। এই ঘটনার কড়া সমালোচনা করেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিঙ্ঘে। যে কোনও ষড়যন্ত্রমূলক খবর এবং গুজব এড়িয়ে যাওয়ার বার্তা দেন বিক্রমাসিঙ্ঘে।

  • জেলার তরুণ ও সফল ব্যাবসায়ী সুমন দাস ও সুশান্ত দাস। দেখুন ভিডিও

    তরুণ ও সফল ব্যাবসায়ী সুমন দাস ও সুশান্ত দাসের অক্লান্ত পরিশ্রম, নিষ্ঠা ও সততার বলে গড়ে উঠেছে আধুনিক কাঁচ শিল্প। যা মালদা জেলা জুড়ে ''সোমা গ্লাস এন্ড গ্লাস'' নামে পরিচিত। এখানে গ্লাস, মিররর ,ইচিং এন্ড ডি ইচিং, প্যাঁচ ফিটিংস, ডোর এন্ড উইন্ডোজ, টাফোন, গ্লাস ওয়রক থেকে শুরু করে কাঁচ ও আইনার যাবতীয় কাজ যত্নের সাথে সূক্ষ্ম হাতে করা হয়ে থাকে। আই আপনি জেলার সেরা কাজ পেতে চলে আসুন...... সোমা গ্লাস এন্ড গ্লাস, এ ঠিকানাঃ কানির মোড়, ষ্টেশন রোড, মালদা ফোন ঃ ৯৮৫১৪৮০৫০৮/ ৯৭৩৩১৯৯৪২৮          ( বিস্তারিত দেখতে ভিডিও তে ক্লিক করুন )