রাজ্য

মালদা

ধোঁয়া মুক্ত করার জন্য মানিকচকের নারায়নপুর চরের বাসিন্দাদের দেওয়া হল বিনামূল্যে এলপিজি গ্যসের কানেকশান।

মালদা

শুরুহল মালদার মহা ঐতিয্যবাহী রামকেলি উৎসব ২০১৯

কলকাতা

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনায় রাজি জুনিয়র চিকিৎসকরা, তবে একটি শর্তে

মালদা

ভস্মীভূত গৃহস্থ বাড়ি, দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি নিয়ে অসহায় দম্পতি প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরে

কলকাতা

মুখ্যমন্ত্রী জনগণকে বিভ্রান্ত করে আমাদের বিরুদ্বে ব্যবহার করতে চাইছেন অভিযোগ জুনিয়র চিকিৎসকদের

কলকাতা

মুখ্যমন্ত্রীকে চিকিৎসকদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার পরামর্শ রাজ্যপালের।

মালদা

মানিকচক থানা পুলিশের সাফল্য,মানিকচক উচ্চ বিদ্যালয়ের চুরি যাওয়া কম্পিউটার সামগ্রী উদ্ধার

কলকাতা

রাজ্যজুড়ে পালিত হলো বিশ্ব রক্ত দাতা দিবস

মালদা

বিশ্ব রক্তদাতা দিবস উদযাপন মালদা শহরে

কলকাতা

মমতার নবান্নে বৈঠকের ডাকের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান জুনিয়র ডাক্তারদের, কাল ফের বৈঠকের আহ্বান

কলকাতা

এনআরএসের ঘটনা নিয়ে হাইকোর্টে জোর ধাক্কা খেল রাজ্য

মালদা

মালদার বাইক চালকরা সাবধান। গত দুইদিনে শহরের বিভিন্ন রাস্তা থেকে ভর সন্ধ্যায় প্রায় ৮০ ৯০ টি বাইক উধাও।

 





খেলা

  • খেলা

    শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে বিশ্বকাপ টেবলের শীর্ষে জায়গা করে নিল অস্ট্রেলিয়া।

    ডেস্ক, ১৫ জুনঃ শেষ পর্যন্ত  শ্রীলঙ্কা পারল না । ভালভাবে  শুরু করেও ধরে রাখতে পারল না শ্রীলঙ্কা ।  সুযোগটা কাজে লাগাতে পারল না তারা। অস্ট্রেলিয়ার  বিরুদ্ধে শ্রীলঙ্কার দুই ওপেনার যে ভাবে শুরু করেছিলেন তাতে মনে হচ্ছিল এ ভাবে চলতে থাকলে জিতেও যেতে পারে শ্রীলঙ্কা। কিন্তু দুই ওপেনারের দেখানো পথে চলতে পারলেন না দলের বাকিরা। শনিবার লন্ডনের কেনিংটন ওভালে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি শ্রীলঙ্কা। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে রানের পাহাড় তৈরি  করে অস্ট্রেলিয়া। ৫০ ওভারে অস্ট্রেলিয়া থামে ৩৩৪-৭-এ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৪৫.৫ ওভারে ২৪৭ রানে শেষ হয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। ৮৭ রানে জিতে টেবিলের শীর্ষে উঠে এল অস্ট্রেলিয়া। এ দিন ডেভিড ওয়ার্নার ব্যর্থ । ২৬ রানেই ফিরে যান তিনি। আর এক ওপেনার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চর  ১৩২ বলে ১৫৩ রানের ইনিংস কোনও অস্ট্রেলীয়র বিশ্বকাপে করা সর্বোচ্চ ইনিংস। এছাড়াও মিডল অর্ডারে স্টিভ স্মিথ ৫৯ বলে ৭৩ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ২৫ বলে ঝোড়ো ৪৬ রান করে যান। সবমিলিয়ে অস্ট্রেলিয়া ৭ উইকেটে ৩৩৪ রান তোলে। শ্রীলঙ্কার হয়ে দু'টি করে উইকেট নেন ইসুরু উদানা ও ধনঞ্জয়া দে সিলভা। এক উইকেট লাসিথ মালিঙ্গার। দুটো রান আউট। রান তাড়া করতে নেমে শ্রীলঙ্কা অসাধারণ শুরু করে। দুই ওপেনার দিমুথ করুণারত্নে ও কুশল পেরেরা ঝোড়ো খেলতে শুরু করেন।  ওপেনিং জুটিতে ১১৫ রান তোলে। সেখান থেকেও একটা দল এত দ্রুত গুটিয়ে যেতে পারে সেটা দেখাল শ্রীলঙ্কার মিডল অর্ডার। ৩৬ বলে ৫২ রান করেন কুসল পেরেরা। মাত্র তিন রানের জন্য সেঞ্চুরিটা করতে পারলেন না অধিনায়ক করুনারত্নে। ১০৮ বলে ৯৭ রান করেন তিনি। তিন ও চার নম্বরে ব্যাট করতে ১৬ ও ৩০ রান করে ফিরে যান লাহিরু থিরিমানে ও কুসল মেন্ডিস। এর পর আর দাঁড়াতে পারেননি। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ৯, মিলিন্দা সিরিবর্দনা ৩, থিসারা পেরেরা ৭, ইসুরু উদানা ৮, লাসিথ মালিঙ্গা ১ রান করে আউট হন। শেষ নুয়ান প্রদীপ কোনও রান না করে ফিরে যেতেই খেলা শেষ। ৪৫.৫ ওভারে ২৪৭ রানে শেষ হয়ে গেল শ্রীলঙ্কা। হারতে হল ৮৭ রানে। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে চার উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক। তিন উইকেট কেন রিচার্ড সনের। দুই উইকেট প্যাট কামিন্সের ও একটি জেসন বেহেনড্রফ। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলেনঃ  অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথ, উসমান খোয়াজা, শন মার্শ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যালেক্স ক্যারি, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, কেন রিচার্ডসন, জেসন বেহেনড্রফ। শ্রীলঙ্কার হয়ে খেলেনঃ : দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), কুসল পেরেরা, লাহিরু থিরিমানে, কুসল মেন্ডিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, ধনঞ্জয়া ডে সিলভা, থিসারা পেরেরা, মিলিন্দা সিরিবর্দনা, ইসুরু উদানা, লাসিথ মালিঙ্গা, নুয়ান প্রদীপ।   read more...

  • খেলা

    ভারতের কাছে হারের পর অস্ট্রেলিয়া আবার জয়ে ফিরল পাকিস্থানকে ৪১ রানে হারিয়ে।

    Newsbazar 24 ডেস্ক,১২ই জুনঃ ভারতের কাছে হারের পর অস্ট্রেলিয়ার কাছে আজকের  এই ম্যাচ জেতাটা খুবই জরুরী ছিল ।  প্রতিপক্ষ দল ছিল  পাকিস্তান।  বুধবার আবহাওয়া ভাল ছিল। পুরো ম্যাচই খেলা হয়েছে। এ দিন টস জিতে প্রথমে অস্ট্রেলিয়াকেই ব্যাট করতে পাঠিয়েছিল পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ । প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়া ৩০৭ রান তুলে নেয় ৪৯ রানে। আরও এক ওভার খেলতে পারলে তা আরও বাড়ত। কিন্তু ৪৯ ওভারে অল-আউট হয়ে যায় ফিঞ্চের দল। যত ভাল শুরু করেছিল ততটাই খারাপ শেষ করল অস্ট্রেলিয়া, যদিও ততক্ষণে বড় রানে পৌঁছে দিয়েছে দুই ওপেনার। সেই লক্ষ্যে নেমে ৪৫.৪ ওভারে ২৬৬ রানে শেষ হয়ে যায় পাকিস্তান। ৪১ রানে পাকিস্তানকে হারিয়ে জয়ে ফিরল অস্ট্রেলিয়া। অ্যারন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার  আস্তে আস্তে খেলা  শুরু করেছিল।  উদ্দেশ্য ছিল বড় রানের ভিত গড়ে দেওয়া । অধিনায়ক ফিঞ্চ ৮৪ বলে ৮২ রানের ইনিংস খেলে আউট হন। উল্টোদিকে তখন একই ছন্দে ব্যাট করছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। ১১১ বলে তাঁর ব্যাট থেকে আসে ১০৭ রান। এর পর আর কেউ দাঁড়াতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ব্যাট হাতে। তবে দরকারও হয়নি। কিন্তু যেভাবে অস্ট্রেলিয়ার বাকি ব্যাটিং লাইন আপে ধস নামল তা টিম ম্যানেজমেন্টের কপালে ভাজ পড়ার জন্য যথেষ্ট।  দলের ৩০৭ রানের মধ্যে ১৮৯ রানই এসেছে দুই ওপেনারের ব্যাট থেকে। বাকি রান করতে ৪৯ ওভারে অল-আউট হয়ে গিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বাকি ব্যাটসম্যানরা। স্টিভ স্মিথ ১০, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ২০, শন মার্শ ২৩, উসমান খোয়াজা ১৮, অ্যালেক্স ক্যারি ২০, নাথান কুল্টার-নাইল ২, প্যাট কামিন্স ২, মিচেল স্টার্ক ৩ রান করে আউট হয়ে যান। পাকিস্তানের হয়ে বল হাতে আবারও সফল মহম্মদ আমির। পাঁচ উইকেট নেন তিনি। দুই উইকেট শাহিন আফ্রিদির। একটি করে উইকেট নেন হাসান আলি, ওয়াহাব রিয়াজ ও মহম্মদ হাফিজ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ওপেনার ফখর জামান কোনও রান না করেই ফিরে যান প্যাভেলিয়নে। কিন্তু হাল ছাড়েননি আর এক ওপেনার ইমাম-উল-হক। ৭৫ বলে ৫৩ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তাঁকে সাময়িক সঙ্গ দেন বাবর আজম। ২৮ বলে ৩০ রান করে আউট হন তিনি। তাঁর পর ৪৯ বলে ৪৬ রান করেন মহম্মদ হাফিজ। শোয়েব মালিক ০, আসিফ আলি ৫, হাসান আলি ৩২ ও ওয়াহাব রিয়াজ ৪৫, মহম্মদ আমির ০ রান করে আউট হন। অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ ৪০ রান করে আউট হন। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে তিন উইকেট নেন প্যাট কামিন্স। দুই উইকেট কেন রিচার্ডসনের ও মিচেল স্টার্ক। একটি করে উইকেট নেন নাথান কুল্টার-নাইল ও অ্যারন ফিঞ্চ। আজকের ম্যাচ খেলার পর  চার ম্যাচ খেলে পাকিস্তানের ৩ পয়েন্ট। এদিকে অস্ট্রেলিয়া ৪ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট পেয়েছে। পাকিস্তান: ইমাম-উল-হক, ফখর জামান, বাবর আজম, মহম্মদ হাফিজ, সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক), শোয়েব মালিক, আসিফ আলি, ওয়াহাব রিয়াজ, হাসান আলি, শাহিন আফ্রিদি, মহম্মদ  আমির। অস্ট্রেলিয়া: ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), শন মার্শ, স্টিভেন স্মিভ, উসমান খোয়াজা, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যালেক্স ক্যারি, নাথান কুল্টার-নাইল, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, কেন রিচার্ডসন।     read more...

  • খেলা

    স্টুডেন্ট অলিম্পিকে "তাইকোন্ডায়” জোড়া সোনা মালদার শহরের দুই বোন কৌশিকী ও অঙ্কুরিমার

    মালদা, ১১ই জুনঃ গত 7 8 9 জুন পাঞ্জাবে অনুষ্ঠিত হয় "তাইকোন্ডায় স্টুডেন্ট অলিম্পিক ।  এই অলিম্পিকে "তাইকোন্ডায় জুনিয়র বিভাগে  জোড়া সোনা  পেয়ে চমক দিল মালদার শহরের দুই   বোন কৌশিকী ও অঙ্কুরিমা  ।এই  শহরের  তাইকোণ্ডা  ক্যম্প  অফ বেঙ্গল এরিয়া    কোচিং সেন্টারের  কোচ মাস্টার  রামাশিষ দাসের হাত ধরে ই দুই বোন   কৌশিকী বোস ও অঙ্কুরিমা বোসের সোনা জয় ।  মালদা শহরের  ব্যবসায়ী কুনাল বোস ও পৌলমী বোসের মেয়ে কৌশিকী ওঅঙ্কুরিমা ।অঙ্কুরিমা  হোলিচাইল্ড স্কুলে  নবম শ্রেণীতে পড়ে  অন্যদিকে বড় মেয়ে  কৌশিকী বোস উষা  মার্টিনে একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী ।এবছর  স্টুডেন্ট  অলিম্পিকে  কৌশিকী বোস অনুর্ধ  17 বছর  51 থেকে 55 কেজি সোনা পায়  । এবং  হোলিচাইল্ডের নবম শ্রেণীর ছাত্রী  অঙ্কুরিমা  অনুর্ধ  14  বছর 45 থেকে 50 কেজি বিভাগে সোনা জেতে । গত 7 জুন পঞ্জাবে  লাভালি প্রফেশনাল ইউনিভার্সিটির মাঠে এই খেলার শুভারম্ভ হয় ।চলে 9 জুন প্রর্যন্ত । গোটা  ভারতবর্ষ থেকে  মোট 500  খেলোয়াড়  অংশগ্রহণ করে । এর মধ্যে  পশ্চিমবঙ্গের 12 জন অংশগ্রহণ করে । এই বারো জনের মধ্যে  তাইকন্ডে রাজ্যের প্রতিনিধি  ছিলো দুই জন । এই দুজনই মালদার  দুই বোন । প্রথম  থেকেই  দুই  বোনকে  বাবা মা  মালদা  শহরের রামাশিষ দাসের তত্ত্বাবধানে ভর্তি করে দেন । ইতিমধ্যে  একাধিক  পুরস্কার  পায়  ।তাইকন্ড ক্যম্প অফ বেঙ্গল  এরিয়া কোচিং  সেন্টারের  রামাশিষ দাস জানান  "এই প্রথম  মালদার  কোন মেয়ে  অলিম্পিক স্তরের  কোন রকম খেলায়  সোনা পেলো । এটা গোটা  মালদা জেলার সম্মান বৃদ্ধি করলো । ওরা পাঞ্জাব থেকে  ফিরে  এলে ওদের সংবর্ধনা ও পুরস্কৃত করা হবে ।ওরা দুজন 8/10 বছর থেকে আমার কাছে প্রশিক্ষণ নেয়। এর আগেও  এই দুই  বোন একাধিক বার জাতীয়  ও রাজ্য স্তরে পুরস্কার পেয়েছে।"" read more...

  • খেলা

    ভারতের বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ র অভিযান শুরু দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬ উইকেটে হারিয়ে।

    Newsbazar 24  ডেস্ক, ৫জুনঃ আজ ভারতীয় ক্রিকেট দল  বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯  প্রথম ম্যাচ খেলতে নামল। প্রতিপক্ষ পর পর  দুই ম্যাচ হেরে যাওয়া দুর্বল দক্ষিণ আফ্রিকা । সাদম্পটনের রোজ বোলে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। শুরু থেকেই ভারতের বোলিং ছিল বিধ্বংসী। যার সামনে কোনও দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানই বড় রান করতে পারলেন না । চাহাল বুমরাদের দাপটে ৫০ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকা থামল ২২৭-৯-এ। এরপর ম্যাচ জেতাতে মুখ্য ভুলিকা নেন রোহিত শর্মা।  দক্ষিণ আফ্রিকাকে ছয় উইকেটে হারিয়ে দিল ভারত। পর পর তিন ম্যাচে হারের মুখ দেখতে হল দক্ষিণ আফ্রিকাকে। বিশ্বকাপ অভিযান জয় দিয়েই  শুরু করলেন বিরাট কোহলিরা। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাথায় চোট পাওয়ার পর বাংলাদেশের বিরুদ্ধে খেলেননি হাশিম আমলা। কিন্তু ভারতের বিরুদ্ধে তাঁকে আবার দলে ফিরিয়ে আনা হয়। কিন্তু যশপ্রীত বুমরার বল তাঁকে ভিতটাই তৈরি করতে দেয়নি। ছয় রানে আউট হয়ে যান তিনি। আর এক ওপেনার কুইন্টন ডে কককেও ১০ রানে ফেরান সেই বুমরাই। বুমরার পর  বোলিংয়ে সফল যুজবেন্দ্র চাহাল। ৩৮ রানে ফাফ দু  প্লেসি, ২২ রানে রসি ভ্যান ডার দুসেন ও ৩১ রানে ডেভিড মিলারকে প্যাভেলিয়নে ফিরিয়ে দেন তিনি। প্রথম দু'জন বোল্ড হন এবং তৃতীয় জন চাহালের হাতেই তুলে দেন ক্যাচ।  মাঢে তিন রানে জেন-পল দুমিনিকে ফেরান কুলদীপ যাদব। এর পর দক্ষিণ আফ্রিকা ব্যাটিংয়ের হাল ধরার চেষ্টা করেন আন্দিল ফেলুকওয়াও (৩৪) ও ক্রিস মরিস (৪২)।  চাহাল তাঁর চতুথ৪ উইকেট তুলে নেন আন্দিলকে আউট করে। কিন্তু  ভুবনেশ্বর কুমার ফেরান ক্রিস মরিস ও ইমরান তাহিরকে। ৩১ রান করে অপরাজিত থাকেন কাগিসো রাবাডা। ২২৭ রানে শেষ হয় দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস। ভারতের হয়ে চারটি উইকেট নেন যুজবেন্দ্র চাহাল। দু'টি করে উইকেট ভুবনেশ্বর কুমার ও যশপ্রীত বুমরার। একটি উইকেট নেন কুলদীপ যাদব। জবাবে ব্যাট করতে নেমে  শুরুটা ভাল হয়নি ভারতের। মাত্র আট রান করে প্যাভেলিয়নে ফিরে যান শিখর ধাওয়ান। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা অধিনায়ক বিরাট কোহলিও বেশিক্ষণ টিকে থাকতে  পারেননি। তিনি ১৮ রানে আউট হয়ে যান। অন্য দিকে তখন টিকে থাকার লড়াই চালাচ্ছিলেন আর এক ওপেনার রোহিত শর্মা। ২৬ রান করে প্যাভেলিয়নে ফিরে গেলে‌ন লোকেশ রাহুলও। শেষ পর্যন্ত একাই লড়লেন রোহিত। ১২৮ বলে হাঁকালেন সেঞ্চুরি। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত এমএস ধোনির ৪৬ বলে ৩৪ রান করে আউট হলেন তিনি। ১৪৪ বলে ১২২ রান করে অপরাজিত থাকলেন রোহিত শর্মা।  দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে দু'টি উইকেট নিলেন কাগিসো রাবাডা। একটি করে উইকেট মরিস ও আন্দিলের। ভারতীয় দলঃ রোহিত শর্মা, শিখৱ ধাওয়ান, বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), লোকেশ রাহুল, এমএস ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পাণ্ড্যে, ভুবনেশ্বর কুমার, কুলদীপ যাদব, যুজবেন্দ্র চাহাল, যশপ্রীত বুমরা। দক্ষিন আফ্রিকাঃ  কুইন্টন ডে কক, হাশিম আমলা, ফাফ দু প্লেসি (অধিনায়ক), রসি ভ্যান ডার দুসেন, ডেভিড মিলার, জেন-পল দুমিনি, আন্দিল ফেলুকওয়াও, ক্রিস মরিস, কাগিসো রাবাডা, ইমরান তাহির, তাবারেজ শামসি।   read more...

  • খেলা

    পাকিস্তানের দুরন্ত কাম ব্যাক বিশ্বকাপের দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ১৪ রানে হারিয়ে দিল

    Newsbazar 24 ডেস্ক, ৩রা জুনঃ পাকিস্তান দুরন্ত ভাবে ঘুরে দাড়াল। প্রথম ম্যাচে যে দল ক্যারিবিয়ানদের কাছে  পর্যুদস্ত হয়ে কোনও রকমে ১০০ রান পার করেছিল তারাই বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯-র   দ্বিতীয় ম্যাচে টুর্নামেন্টের এক নম্বর ফেভারিট দলের বিরুদ্ধে ৩৪৮ রানের বিরাট ইনিংস খেলে বসল। যে পাকিস্তান দলকে নিয়ে  নিজ দেশে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল , প্রাক্তনরা যখন তাদের ছেড়ে কথা বলছেন না ঠিক সেই সময়  মাঠে নেমে উপযুক্ত  জবাব  দিয়ে  ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দারুন জয় তুলে নিল সহজেই।  যদিও লড়াইটা সহজ ছিল না  ইংল্যান্ডও  সমানে লড়াই করে গেল । কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই লড়াই কাজে লাগেনি। হাতছাড়া হতে হতে আবার ম্যাচে ফিরল পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের জোড়া সেঞ্চুরি কোন কাজে লাগল না ।  ইংল্যান্ডের জিততে শেষ ওভারে দরকার ছিল ২৫ রান। হাতে ছিল দুই উইকেট। কিন্তু ৫০ ওভারে ৩৪৮ রানই তুলতে পারল ইংল্যান্ড। ১৪ রানে ম্যাচ জিতে নিল পাকিস্তান। ট্রেন্ট ব্রিজে টস জিতে প্রথমে পাকিস্তানকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছিলেন ইয়ন মর্গ্যান। শুরু থেকেই ধিরে চল নীতি নিয়ে ব্যাট করতে শুরু করেছিলেন দুই ওপেনার ইমাম-উল-হক ও ফখর জামান। যাঁর ফলে তাঁদের ব্যাট থেকে এল ৪৪ ও ৩৬ রানের ইনিংস। দুই ওপেনার ফিরতেই পাকিস্তান ইনিংসের হাল ধরেন তিন ও চার নম্বরে খেলতে নামা বাবর আজম ও মহম্মদ হাফিজ। বাবর আউট হলেন ৬৩ রানে। হাফিজ  ৬২ বলে ৮৪ রান করেন । দুই ওপেনার ভিতটা তৈরি করে দেওয়ায় পরের ব্যাটসম্যানরা সেই মঞ্চে বড় রানের লক্ষ্যে বড় শট খেলতে পেরেছেন। পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদও ৪৪ বলে ৫৫ রানের ই‌নিংস খেললেন। যাঁর ফিটনেস নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল প্রথম ম্যাচের পর থেকে। প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকেই যখন রান আসে তখন বড় রান নিশ্চিত হয়ে যায়। এর আর কেউ বড় রান না পেলেও ৩০০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে যেতে কোনও অসুবিধেই হয়নি পাকিস্তানের। ৫০ ওভারে পাকিস্তান থামে ৩৪৮-৮-এ। ইংল্যান্ডের হয়ে তিনটি করে উইকেট নেন ক্রিস ওকস ও মইন আলি। দুই উইকেট নেন মার্ক উড। ৩৪৯ রানের বিরাট রানের বোঝা নিয়ে  নেমে শুরুটা ভাল হয়নি ইংলন্ডের। জেসন রয় তৃতীয়  ওভারেই মাত্র আট রান করে ফিরে যা‌ন। আর এক ওপেনার জনি বেয়ারস্টো ৩২ রান করেন। কিন্তু তিন নম্বরে নামা জো রুট পাকিস্তানের জয় যতটা সহজ হবে মনে করা হচ্ছিল সেই ধারনাটা পাল্টে দেনন। ১০৪ বলে ১০৭ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ১০টি বাউন্ডারি ও একটি ওভার বাউন্ডারি হাঁকান। ইয়ন মর্গ্যান নয় ও বেন স্টোকস ১৩ রান করে আউট হওয়ার পর জো রুটের সঙ্গে ইংল্যান্ড ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন জোস বাটলার। ৭৬ বলে ১০৩ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন তিনি। বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরিটিও নিজের নামে লিখে নিলেন বাটলার। যে ভাবে পাকিস্তানের ব্যাটিং ম্যাচে ফিরল সেভাবে বোলিং পারল না। যে কারনে জোড়া সেঞ্চুরি তুলে নিল ইংল্যান্ড। এবং সহজ ম্যাচ কঠিন করে জিতল পাকিস্তান। শেষ বেলায় কিছুটা ছন্দে ফিরল পাকিস্তান বোলিং। তিন উইকেট নিলেন ওয়াহাব রিয়াজ। দুটো করে উইকেট শাদাব খান ও মহম্মদ আমিরের। একটি করে উইকেট মহম্মদ হাফিজ ও শোয়েব মালিকের। পাকিস্তান দল : ফখর জামান, ইমাম-উল-হক, বাবর আজম, মহম্মদ হাফিজ, সরফরা আহমেদ, শোয়েব মালিক, আসিফ আলি, শাদাব খান, হাসান আলি, ওয়াহাব রিয়াজ, মহম্মদ আমির। ইংল্যান্ড দল : জেসন রয়, জনি বেয়ারস্টো, জো রুট, ইয়ন মর্গ্যান, বেন স্টোকস, জোস বাটলার, মইন আলি, ক্রিস ওকস, জোফরা আর্চার, আদিল রশিদ, মার্ক উড। read more...


ব্যবসা

detail

স্মার্টফোন কেনার পরিককল্পনা করছেন ? এক নজরে 20,000 টাকার নীচে ভারতের সেরা পাঁচটি

news bazar24: 20,000 টাকা বাজেটে স্মার্টফোন কেনার পরিককল্পনা করছেন? এই দামে সম্প্রতি বাজারে এসেছে একগুচ্ছ নতুন স্মার্টফোন। এর ফলে কোন ফোনটি কিনবেন বুঝে উঠতে পারবেন না? এই দামের স্মার্টফোনে যেমন AMOLED ডিসপ্লে পাবেন। কয়েকটি ফোনে পাবেন ডিসপ্লের নীচে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সার। এক নজরে 20,000 টাকার নীচে ভারতের সেরা পাঁচটি  20,000 টাকার নীচে স্মার্টফোন Gadgets 360 রেটিং  (10 এর মধ্যে) দাম Poco F1 8 19,999 টাকা Nokia 7.1 8 19,999 টাকা Redmi Note 7 Pro 9 16,999 টাকা Samsung Galaxy A50 8 19,990 টাকা Oppo K1 8 16,990 টাকা   Poco F1 ডুয়াল সিম Poco F1 এ Android Pie অপারেটিং সিস্টেমের উপরে কোম্পানির নিজস্ব MIUI 10 অপারেটিং সিস্টেম চলবে। Poco F1 এর ভিতরে থাকবে একটি Snapdragon 845 চিপসেট। এর সাথেই থাকবে 6GB/8GB RAM আর 64GB, 128GB আর 256GB ইন্টারনাল স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Poco F1 এ থাকবে একটি 12MP Sony IMX363 সেন্সার। এর সাথেই এই ফোনের পিছনে থাকবে একটি 5 মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারিও সেন্সার। Poco F1 এর সামনে থাকবে একটি 20 মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। ফেস আনলক ফিচার সহ লঞ্চ হয়েছে নতুন Poco F1। কানেক্টিভিটির জন্য Poco F1 এ থাকবে 4G+, VoLTE, Wi-Fi 802.11ac, Bluetooth v5.0, USB Type-C, 3.5 হেডফোন জ্যাক। Poco F1 এর ভিতরে থাকবে একটি 4,000 mAh ব্যাটারি। Quick Charge 3 এর সাহায্যে খুব সহজেই এই ফোনের ব্যটারি চার্জ করে নেওয়া যাবে। Nokia 7.1 ডুয়াল সিম Nokia 7.1 এ রয়েছে Android Oreo অপারেটিং সিস্টেম। এই ফোনে রয়েছে 5.84 ইঞ্চি FHD+ ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লের অ্যাসপেক্ট রেশিও 19:9। Nokia 7.1 এর ভিতরে থাকবে Qualcomm Snapdragon 636 চিপসেট, 4GB RAM আর 64GB স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Nokia 7.1 ফোনে থাকছে 12MP+5MP ডুয়াল ক্যামেরা সেন্সার। এই ক্যামেরায় থাকছে Zeiss লেন্স। এছাড়াও ফোনের পিছনের ক্যামেরায় থাকছে ইলেকট্রনিক ইমেজ স্টেবিলাইজার। ফোনের সামনে থাকছে 8MP সেলফি ক্যামেরা। কানেক্টিভিটির জন্য Nokia 7.1 এ থাকবে 4G LTE, Wi-Fi 802.11ac, Bluetooth v5.0, GPS/ A-GPS, GLONASS, NFC, USB Type-C আর একটি 3.5 মিমি হেডফোন জ্যাক। ফোনের ভিতরে রয়েছে একটি 3060 mAh ব্যাটারি। Nokia 7.1 এর ওজন 159 গ্রাম। Redmi Note 7 Pro Redmi Note 7 Pro তে থাকবে একটি 6.3 ইঞ্চি FHD+ ডিসপ্লে। ডিসপ্লের উপরে থাকছে ছোট নচ। ফোনের ভিতরে থাকছে Snapdragon 675 চিপসেট, 6GB পর্যন্ত RAM আর 128GB পর্যন্ত স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Redmi Note 7 Pro তে থাকছে ডুয়াল ক্যামেরা সেট আপ। প্রাইমারি ক্যামেরায় থাকছে 48 মেগাপিক্সেল সেন্সর। সাথে থাকছে একটি 5 মেগাপিক্সেল ডেপ্ত সেন্সর। সেলফি তোলার জন্য একটি 13 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ব্যবহার করেছে Xiaomi। সব ক্যামেরাতেই থাকছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সাপোর্ট। Android 9 Pie অপারেটিং সিস্টেমের উপরেই Redmi Note 7 Pro ফোনে চলবে কোম্পানির নিজস্ব MIUI 10 স্কিন। থাকছে একটি 4,000 mAh ব্যাটারি আর ফাস্ট চার্জ সাপোর্ট। Samsung Galaxy A50 Samsung Galaxy A50 ফোনে লেটেস্ট Android Pie অপারেটিং সিস্টেমের উপরেই থাকছে কোম্পানির নিজস্ব One UI স্কিন। Galaxy A50 ফোনে থাকছে 6.4 ইঞ্চি FHD+ Super AMOLED ডিসপ্লে। ফোনের ভিতরে থাকছে Exynos 9610 চিপসেট, 6GB পর্যন্ত RAM আর 64GB স্টোরেজ আর 4,000 mAh ব্যাটারি। থাকছে USB Type-C আর 15W ফাস্ট চার্জিং। Galaxy A50 ফোনের পিছনে তিনটি ক্যামেরা ব্যবহার করেছে Samsung। ফোনের পিছনে থাকছে 25 মেগাপিক্সেল + 8 মেগাপিক্সেল + 5 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ফোনের সামনে থাকছে একটি 25 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। কোম্পানির নতুন One UI স্কিনে খুব সহজেই এক হাতে স্মার্টফোন ব্যবহার করা যায়। Super AMOLED  ডিসপ্লের জন্য এই ফোনে বিশেষ ডার্ক মোড ব্যবহার করেছে Samsung। Oppo K1 ডুয়াল সিম Oppo K1 ফোনে Android 8.1 Oreo  অপারেটিং সিস্টেম এর উপরেই চলবে কোম্পানির নিজস্ব ColorOS 5.2 স্কিন। Oppo K1 এ থাকছে একটি 6.4 ইঞ্চি FHD+  ডিসপ্লে। ফোনের ভিতরে থাকবে একটি Snapdragon 660 চিপসেট 4GB/6GB RAM আর 64GB স্টোরেজ। ছবি তোলার জন্য Oppo K1 ফোনে থাকছে একটি 16 মেগাপিক্সেল + 2 মেগাপিক্সেলের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। সাথেক থাকছে LED ফ্ল্যাশ। সেলফি তোলার জন্য ফোনের সামনে থাকছে একটি  25 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা।  কানেক্টিভিটির জন্য এই ফোনে  4G VoLTE, Wi-Fi i 802.11 a/b/g/n/ac, Bluetooth 5.0, GPS/ A-GPS আর GLONASS ব্যবহার করেছে Oppo। থাকছে একটি 3,600mAh ব্যাটারি। ... read more


Video Gallery

image


soma glass